আতসবাজি জ্বালিয়ে মহালয়া পালন করার চিরাচরিত রেওয়াজ চলে আসছে যুগ যুগ ধরে

0
28

নীলকণ্ঠ দাস, আসানসোল: পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে দেবীপক্ষের সূচনার শুভমুহুর্ত কে চিরাচরিত ধারায়  স্মরন করা হয় মহালয়ার মাধ্যমে। বীরেন্দ্র কৃষ্ণ ভদ্রের কন্ঠে দেবী দশভূজার আবহন আজো সবার ঘরে ঘরে শোনা যায়। চিরাচরিত প্রথায় নদীতে দেখা যায় পিতৃ পুরুষদের উদ্দেশ্য তর্পণ করতে। কথিত আছে পিতৃপক্ষের অবসান মুহুর্তে পিতৃপুরুষেরা অপেক্ষা করে তাদের বংশধর দের কাছ থেকে একটু তিলজল পেতে।

অন্যদিকে দেবীর মর্তে আগমনের সংকেতে আপামর জনগণ মেতে উঠে আনন্দোৎসবে এবং প্রথা অনুযায়ী ঘরে ঘরে আতসবাজি ফোটানোর রেওয়াজ চলে আসছে যুগ যুগ ধরে। এইবছরও প্রথা অনুযায়ী নদীর ঘাটে তর্পন এবং আতসবাজি ফোটাতে দেখা গেছে বিভিন্ন জায়গায়। একদিকে পিতৃপুরুষদের তিলজল অর্পন করে ভারাক্রান্ত মন, অন্যদিকে দেবী দূর্গার আগমনির খুশীতে আতসবাজি জ্বালিয়ে মহালয়া পালন করার চিরাচরিত রেওয়াজ চলে আসছে যুগ যুগ ধরে।

MIJANUR

(Visited 4 times, 1 visits today)