উত্তরবঙ্গের কলেজ-বিশ্ববিদ্যালগুলিতে বাড়ছে এবিভিপির শক্তি, দাবি নেতৃবৃন্দের

প্রতীকী ছবি।

মনোজ রায়: একসময় সব কিছুই ছিল তৃণমূল ছাত্রপরিষদের দখলে। চারিদিকে উড়ত জোরাফুলের পতাকা। কিন্তু এবার উত্তরবঙ্গের কলেজ বিশ্ববিদ্যালগুলি ছয়লাপ এবিভিপিতে। উত্তরবঙ্গে শক্তিশালী হচ্ছে এবিভিপি। এমনটাই জানাল নেতৃবৃন্দের। তাদের দাবি, যে সমস্ত কলেজগুলোতে আগে এবিভিপির কোন সদস্যই ছিল না, সেই সমস্ত কলেজগুলোতেও সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধি হয়েছে এবিভিপির। অন্যদিকে কলেজে কলেজে এবিভিপির সদস্য সংগ্রহ অভিযান এখনও চলছে বলে খবর।

জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়ির এবিভিপির সম্পাদক হারু সরকার জানান, জলপাইগুড়ি জেলায় এখন পর্যন্ত মোট ৩ হাজার ৮৩৪ জন সদস্য রয়েছে। যার মধ্যে ধূপগুড়িতেই রয়েছে ১৬৫৭ জন সদস্য এবং ময়নাগুড়িতে ৭৪২ জন। এছাড়াও মেখলিগঞ্জে বর্তমানে রয়েছে ৮২৩ জন সদস্য এবং জলপাইগুড়ি শহরে ৬২১ জন। এবিভিপির রাজ্য সম্পাদক সপ্তর্ষি সরকারের কথায়, “আগে গোটা রাজ্যে এবিভিপির সদস্য সংখ্যা ছিল ৪১ হাজার। বর্তমানে তা ছাড়িয়ে হয়েছে ৮২ হাজার।” কিছুদিনের মধ্যেই এই সদস্য সংখ্যা দু’লাখ ছাড়িয়ে যাবে বলে আশাবাদী তিনি।

উল্লেখ্য, লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই আরএসএস এর ছাত্র সংগঠন এবিভিপিকে শক্তিশালী করতে মাঠে নেমেছিল নেতৃত্ববর্গরা। এমনকি লোকসভা ভোটেও উত্তরবঙ্গে খুব ভাল ফল করেছে বিজেপি। এবিভিপির তরফে জানানো হয়েছে, কলেজগুলোতে তৃণমূলের গুন্ডাবাহিনীর সন্ত্রাসে সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে এবিভিপিতে যোগদান করেছে।  যদিও তৃণমূল ছাত্র পরিষদের নেতারা এবিভিপির এই দাবি মানতে নারাজ। তবে এবিভিপির সদস্য সংগ্রহ অভিযানের শেষে তাদের সদস্য সংখ্যা দু’লাখ ছড়িয়ে যাবে বলে দাবি এবিভিপির।

@মনোজ

(Visited 203 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here