পূজোর মুখে অমৃতসর-হাওড়া মেলে ডাকাতি, সর্বোস্ব খোয়ালেন পর্যটকরা

0
47

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: দূরপাল্লার ট্রেনে ডাকাত দলের হামলার শিকার হলেন পূর্ব বর্ধমান জেলায় যাত্রীরা। ডাকাতিতে বাধা দেওয়ায় ছুরিকাঘাতে জখম হন এই যাত্রী। সোমবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে ডাউন অমৃতসর হাওড়া মেলে। ট্রেনে কোন নিরাপত্তারক্ষী না থাকায় যাত্রীদের কাছে থেকে নগদ অর্থ, মোবাইল ফোন সহ ব্যাগ ভর্তি সমস্ত সামগ্রী নিয়ে পালায় ডাকাতদল।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বর্ধমান স্টেশানে নেমে জিআরপিতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন ডাকাত দলের হাতে আক্রান্ত ট্রেন যাত্রীরা। এই ঘটনা ফের সামনে এনেদিল দুরপাল্লার ট্রেনে যাত্রী নিরাপত্তা সুনিশ্চিৎ করার ব্যাপারে রেল দফতরের উদাসীনতা।

ডাকাত দলের হামলার শিকার অমৃতসর হাওড়া মেলের যাত্রীরা পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর থানার রুদা গ্রামের বাসিন্দা। এই গ্রামের চারটি পরিবারের ১৫ জন সদস্য বিশ্বকর্মা পূজোর দিন কুলু, মালানী, অমৃতসর ঘুরতে যান। বাড়ি ফেরার জন্য সোমবার সকালে তাঁরা ডাউন অমৃতসর- হাওড়া মেলে ওঠেন। ট্রেন যাত্রী অনুপম ঘোষ জানান ‘ওইদিন রাত ২ টো নাগাদ ডাকাত দল উত্তরপ্রদেশের প্রতাপপুর ষ্টেশনে ট্রেনে ওঠে। ডাকাতরা তাঁদের এস-৫ কামড়ায় হানা দেয়। ডাকাতরা তাদের ব্যাগ নিয়ে পালানো শুরু করে। ওই সময়ে ঘুম ভেঙে যাওয়ায় তারা ডাকাতদের বাধা দেন।’

অনুপম বাবু জানান, ‘বাধা দেওয়ায় ডাকাতদলের একজন তাঁকে ছুরি মারে।’ স্বামীকে বাঁচাতে গিয়ে অনুপমবাবুর স্ত্রী প্রিয়াঙ্কা ঘোষও ডাকাতদের হাতে আক্রান্ত হন। তাদের সহযাত্রী ঝুমা ঘোষ জানান, ‘ট্রেনে কোন নিরাপত্তা রক্ষীকে (আরপিএফ ) তারা দেখতে পাননি। ট্রেনের গার্ডকে জানানো হলে, তিনি প্রাথমিক চিকিৎসা ছাড়া আর কোন কিছুর ব্যবস্থা করেননি।’

এদিন সন্ধ্যায় অমৃতসর মেল বর্ধমানের ৫ প্ল্যাটফর্মে ট্রেন থামলে যাত্রীরা ট্রেন থেকে নেমে রেলের নিরাপত্তা নিয়ে ক্ষোভ উগরে দেন জিআরপির কাছে। নগদ ৭০ হাজার টাকা, ৪ টি মোবাইল ফোন ও অন্যান্য সামগ্রী ডাকাতদের হাতিয়ে নেবার বিষয়ে এদিন রাতে জিআরপিতে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন দুই ট্রেন যাত্রী পরিবার। ঘটনা নিয়ে বর্ধমান জিআরপি কর্তার যদিও সংবাদ মাধ্যমের কাছে কোন মন্তব্য করতে চাননি।

@এস. এ. হামিদ 

(Visited 8 times, 1 visits today)