উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে বিজেপি ঝড় ঠেকাতে তৃণমূলের সাংগঠনিক রদবদল

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: বিজেপি ঝড় ঠেকাতে এবার উত্তর পূর্বের সাতটি রাজ্যের জন্য নতুন রনকৌশল তৈরির সিদ্ধান্ত নিল সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেস কমিটি। ভেঙে দেওয়া হল আগের যাবতীয় কমিটি। সোমবার এক লিখিত বিবৃতিতে মারফত এই সিদ্ধান্তের কথা জানান হয়। লিখিত বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, ২০২০ সালের শুরুর দিকে আবারও নতুন কমিটি ঘোষিত হবে।

কিন্তু তৃণমূলের তরফে কেন এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হল, তা নিয়ে নানা মহলে ইতিমধ্যেই জল্পনা শুরু হয়ে গিয়েছে। রাজনৈতিক মহলের ধারণা পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতা ধরে রাখতেই এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল। ঘটনাচক্রে তৃণমূলের হয়ে এক সময় এই রাজ্যগুলির পর্যবেক্ষকের দায়িত্বে ছিলেন মুকুল রায় ও সব্যসাচী দত্ত। বর্তমানে তারা বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় ওই সাত রাজ্যে সংগঠন ক্রমেই দুর্বল হয়ে পড়েছে। সেই কারণেই এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পরে বলে মত রাজনৈতিক মহলের।

অপরদিকে, গত কয়েক বছরে বিজেপির দেশ জুড়ে যে প্রতিপত্তি বেড়েছে, তাতে তৃণমূলের সংগঠন অনেকটাই ভেঙে গিয়েছে। একই পরিণতি সদ্য সমাপ্ত বাংলার লোকসভা ভোটেও। জোর ধাক্কা খেয়েছে তৃণমূল। তেমনি পারিপার্শ্বিক রাজ্যগুলিতে প্রার্থীদের জামানত খুইয়েছে তারা। তাই সংগঠন নতুন করে ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের। গোপন সূত্রে খবর ওই সাত রাজ্যের জন্য আলাদা করে প্রশান্ত কিশোরকেও দায়িত্ব দেওয়া হতে পরে।

উত্তর-পূর্বের গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য অসমে এনআরসি নীতি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন আগ্রাসনের নীতি অবলম্বন করেছেন। তখন সেই সময় রাজ্যগুলির সব কমিটি ভেঙে দিয়ে কি রণনীতি নিতে চাইলেন তিনি? এ নিয়ে রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠে গেছে।রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ দের মতে ২০২১ সালে পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা নির্বাচনে মনোনিবেশ করতে চায় তৃণমূল নেতৃ। তাই ওই সাত রাজ্যের সংগঠনের দায়িত্ব হয়ত প্রশান্তের হতে তুলে দেওয়া হতে পারে।

এক সময় পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে সংগঠন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। অসম, অরুণাচল, ত্রিপুরা ও মনিপুরে বেশকিছু বিধায়ক পেয়েছিল বাংলার শাসক দল। কিন্তু ত্রিপুরার শেষ বিধানসভা নির্বাচনে এক শতাংশেরও নিচে ভোট পেয়েছিল তৃণমূল। এরপর থেকেই উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে তৃণমূলের গতিবিধি ক্রমশ কমতে থাকে।

@মনোজ 

(Visited 39 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here