মুকেশ আম্বানির পরিবারকে নোটিশ পাঠিয়েছে আয়কর দপ্তর!

0
14

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: অঘোষিত বিদেশি আয় ও সম্পত্তি’র জন্য মুকেশ আম্বানির পরিবারকে নোটিশ পাঠিয়েছে আয়কর দপ্তর। একাধিক বিদেশি সংস্থা থেকে পাওয়া বিভিন্ন তথ‍্যের ভিত্তিতে আয়কর দপ্তরের মুম্বাই শাখা, চলতি বছরের ২৮ মার্চ মুকেশ আম্বানির স্ত্রী নীতা আম্বানি ও তাঁদের তিন সন্তানের নামে নোটিশ পাঠিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। এতদিন পর সেই চিঠির তথ্য সামনে এসেছে। যদিও আম্বানি পরিবারের পক্ষ থেকে এরকম কোনও নোটিশ পাওয়ার কথা সম্পূর্ণভাবে অস্বীকার করা হয়েছে।

আয়কর দফতর সূত্রে খবর, চলতি বছরের ২৮ মার্চ অত‍্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে ২০১৫ সালে তৈরি হওয়া কালো টাকা আইন অনুযায়ী এই নোটিশ পাঠানো হয়েছে। তবে আম্বানিদেরকে এই নোটিশ পাঠানোর আগে কেন্দ্রীয় প্রত‍্যক্ষ আয়কর দপ্তরের অফিসারদের সঙ্গে মুম্বাই শাখার অফিসারদের বেশ কয়েকবার আলোচনা হয়। তারপর চূড়ান্ত নোটিশ পাঠানো হয় এই শিল্পপতির পরিবারকে।

আয়কর দপ্তরের পাঠানো নোটিশে বলা হয়েছে, ২০০৩ সালের ১৫ নভেম্বর তৈরি হওয়া ক‍্যাপিটাল ইনভেস্টমেন্ট ট্রাস্ট নামক একটি বিদেশি সংস্থার “চূড়ান্ত সুবিধাভোগী” হিসেবে আম্বানি পরিবারের সদস্যদের নাম উল্লেখ রয়েছে। এছাড়াও হরিনারায়ণ এন্টারপ্রাইজ নামক আর একটি সংস্থা থেকে সুবিধা ভোগ করছে এই পরিবার। ২০১২ সালে তৈরি অর্থ বিল অনুযায়ী বিদেশি সম্পত্তি ও তা থেকে উপার্জনের সমস্ত তথ্য সরকারের কাছে জমা দিতে হবে। জানা গিয়েছে এই দুটি সংস্থা সম্পর্কে কোনও তথ্য দেখাতে পারেননি আম্বানিরা।

জানা গিয়েছে, ২০১১ সালে ইউপিএ-২  সরকারের আমলে ৭০০ জন ভারতীয়র গোপন নথি ও এইচএসবিসি জেনেভাতে থাকা ব‍্যাঙ্ক অ‍্যাকাউন্টগুলোর তথ‍্য হাতে পায় ভারতীয় আয়কর দপ্তর। এরপরই তারা তদন্তে নামে। আয়কর দপ্তরের পাশাপাশি ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে তদন্তকারী সাংবাদিকদের আন্তর্জাতিক কনসোর্টিয়ামও এই বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নামে। সেইসময় একটি সর্বভারতীয় ইংরেজি সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল এইচএসবিসি জেনেভা ব‍্যাঙ্কের ১৪টি অ‍্যাকাউন্টের ৬০১ মিলিয়ন ডলার কিভাবে রিলায়েন্স গ্রুপে দেওয়া হয়েছে।

Published by- sa.hamid

(Visited 2 times, 1 visits today)