খাওয়ার পরে যে কাজগুলি করা একেবারেই অনুচিত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সুস্থ থাকার জন্যই তো আমরা রোজ ভিটামিনস, মিনারেলসযুক্ত খাবার গ্রহণ করি। তবে খাবারের পরে বেশ কিছু বিধিনিষেধ মানতে হয়। না হলে শরীরে সকল পুষ্টি উপাদান যাওয়া সত্ত্বেও তা ঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। খাওয়ার ব্যাপারে আপনাকে যেমন সতর্ক থাকতে হবে, তেমনি খাওয়ার পরেও কোন কোন কাজ করছেন সেই ব্যাপারে নজরদারি করতে হবে। দৈনন্দিন জীবনে কিছু কাজ, বিশেষ কিছু খাবার বড় কোনও মিলের পর করা উচিৎ নয়। তাহলে শরীরে পরিপাকক্রিয়া থেকে শুরু করে হজমের সমস্যা হয়, খাবার থেকে পুষ্টি উপাদান শোষণও ব্যাহত হয়।

১) প্রথমে বলব ভারী কোনও খাবার খাওয়ার পরে অনেকেই শুয়ে পড়েন, যা ভীষণভাবেই ভুল। এতে শরীরে মেটাবলিজম ক্রিয়া ধীরগতিতে হবে, অন্ত্রতে অ্যাসিড নিঃসরণ বেড়ে যায়। এমনকী অ্যাসিড রিফ্লাক্সের সমস্যা, হার্টবার্ন হতে পারে। সমস্যাটি বাড়াবাড়ি হলে গা বমি ভাবও হতে পারে। এমনকী রাতে খাওয়ার পর শুয়ে পড়লে মাঝরাত্রে অতিরিক্ত অ্যাসিডিটির সমস্যাতে ঘুম ভেঙে যেতে পারে। তাই ঘুমনোর ৩০ মিনিট আগে লাঞ্চ বা ডিনার সেরে নিন।

২) খাওয়ার পরে রোজ ব্রাশ করতে হয়, খাওয়া বলতে লাঞ্চ ও ডিনারকেই বলা হচ্ছে। রাতে ব্রাশ করে ঘুমান বলে সকালে ঘুম থেকে উঠেই ব্রাশ করার দরকার নেই। তার বদলে দুপুর ও রাতে ভারী খাবার খাওয়ার পরে ব্রাশ করুন। তবে অ্যাসিডিক পানীয় কিংবা সফট পানীয় পানের পরই ব্রাশ করা ঠিক নয়। কেননা এতে দাঁতের এনামেলের ক্ষতি হতে পারে। কাজেই খাওয়ার ৩০ মিনিট পরে ব্রাশ করুন।

৩) আমাদের খাবার খাদ্যনালী দিয়ে অন্ত্রে পৌঁছনোর পরেই মেটাবলিজম শুরু হয়। শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ থেকে নানারকম উৎসেচক বের হয়। তখন স্নান করা উচিৎ নয়। এর ফলে বিপাকক্রিয়ার হার কমে যায় ও ক্যালোরি বার্নের পরিমাণও কম হয়।

৪) অনেকেই ঘন ঘন চা কিংবা কফি খান। বিশেষ করে দুপুরে খাওয়ার পরে কিংবা রাতজেগে পড়ার জন্য ডিনারের পরেও। এতে শরীরে অল্প সময়ের জন্য এনার্জি এলেও তা থেকে নানান সমস্যা হয়। কেননা চায়ে থাকা ট্যানিক অ্যাসিড শরীরে আয়রন শোষণে বাধা দেয়। তবে খাবার খাওয়ার পরে যদি গরম পানীয় পান করতে চান, তাহলে হারবাল চা খান।

৫) ফল খাওয়ার সময় নিয়েও আমাদের মতে মতভেদ আছে। বেশিরভাগেরই ধারণা দুপুরের খাবারের পর ফল খাওয়া ভালো। আদৌ তা নয়। ভারী পেটে ফল খেলে পেটব্যথা বা হজমের সমস্যা হতে পারে। ব্রেকফাস্ট ও লাঞ্চের মধ্যে মিড লাঞ্চ স্ন্যাক্স হিসাবেই ফলকে রাখুন।

৬) ভারী মিলের পর ধূমপান করার অভ্যাস থাকলে তা ছাড়ুন। ধূমপান এমনিতেই শরীরের জন্য খারাপ আর খাবার খাওয়ার পরে করলে তা দ্বিগুণ ক্ষতি ডেকে আনে।

৭) রোজ হালকা এক্সারসাইজ শরীরকে ফিট রাখে, তবে ভারী মিলের পরে কখনওই এক্সারসাইজ করবেন না। তাতে হজমক্রিয়া ভীষণভাবে ব্যাহত হবে। এক্সারসাইজ করতে হলে মিলের দুঘণ্টা আগে করুন।

sweta

(Visited 31 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here