দীপককে ফিরে পেতেই চোখে জল পরিবারের, উড়িষ্যায় নিখোঁজ মানসিক ভারসাম্যহীনকে উদ্ধার বর্ধমান পুলিশের

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: উড়িষ্যায় নিখোঁজ হয়ে যাওয়া মানসিক ভারসাম্যহীন এক যুবককে উদ্ধার করে তাঁর বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিল পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার পুলিশ। শুক্রবার সকালে রায়না থানায় পৌছান নিখোঁজ যুবক দীপক ভুঁইয়ার বাবা রাজু ভুঁইয়া ও মা কমলা ভুঁইয়া। প্রায় পৌনে দুমাস নিখোঁজ থাকা সন্তানকে এদিন রায়না থানায় দেখতে পেয়ে চোখের জল আর ধরে রাখতে পারেননি কমলাদেবী ও রাজু ভুঁইয়া।

সন্তানকে ফিরে পাবার জন্য তাঁরা রায়না থানার সকল পুলিশ আধিকারিকদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান। নিয়ম কানুন মেনে দীপককে হস্তান্তর সংক্রান্ত নথিপত্র রায়না থানায় দাখিল করে তাঁর বাবা। এরপরেই মানসিক ভারসাম্যহীন যুবক দীপককে তাঁর বাবা মায়ের হাতে তুলে দেয় রায়না থানার পুলিশ। এদিনই সন্তানকে নিয়ে উড়িষ্যা রওনা দেন কমলাদেবী ও রাজু ভুঁইয়া।

পুলিশ সূত্রে খবর- উড়িষ্যার সুন্দরগড় জেলার বীরমিত্রাপুর থানার বীরমিত্রাপুর গ্রামে বসবাস করেন ভুঁইয়া পরিবার। রাজু ভুঁইয়া ও কমলা ভুঁইয়ার বছর ২১ বছর বয়সী ছেলে দীপক ভুঁইয়া মানসিক ভারসাম্যহীন। গত ৯ আক্টোবর দীপক বাড়ি থেকে বেরিয়ে পড়ে। তার পর থেকে সে নিখোঁজ হয়েযায়। রাজু ভুঁইয়া বলেন, ছেলেকে ফিরেপেতে তাঁরা পরিবারের সবাইমিলে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজ চালিয়েছিলেন। কিন্তু কোথাও দীপককে খুঁজে না পেয়ে বীরমিত্রাপুর থানায় নিখোঁজ ডাইরি করেন।

রাজু বাবু জানান, বৃহস্পতিবার বীরমিত্রাপুর থানা মাধ্যমে জানতে পারেন দীপক পূর্ব বর্ধমানের রায়না থানার হেপাজতে রয়েছে। এই খবর পাবার পর এদিন সকালে রায়না থানায় পৌছে নিখোঁজ ছেলেকে ফিরে পান। উড়িষ্যা থেকে দীপক কিভাবে পশ্চিমবঙ্গের রায়নায় চলে এল সেটা ভেবেই আশ্চর্য হয়েছেন ভুঁইয়া দম্পতি।

রায়না থানার ওসি পুলক মণ্ডল বলেন, গত বুধবার সকালে উদ্দেশ্যহীন ভাবে রায়নার পলাশন বাজার এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছিল এই যুবক। এলাকার সিভিক ভল্যান্টিয়ার তার সঙ্গে কথা বলে বুঝতে পারে সে মানসিক ভারসাম্যহীন। যুবককে উদ্ধার করে থানায় আনা হয়। নানা ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ চালিয়ে জানতে পারা যায় যুবকের নাম- দীপক। তাঁর বাড়ি উড়িষ্যার বীরমিত্রাপুর থানা এলাকায়। এরপর বীরমিত্রাপুর থানার সঙ্গে যোগাযোগ করে জানা যায় সেখানকার এক মানসিক ভারসাম্যহীন যুবক নিখোঁজ রয়েছে। বীরমিত্রাপুর থানা মাধ্যমে খবরে পেয়ে এদিন দীপকের বাবা ও মা রায়না থানায় এসে নিজের ছেলেকে চিনতে পারেন। প্রশাসনিক নিয়মকানুন মেনে দীপককে তাঁর বাবা মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে।

@এস. এ. হামিদ

(Visited 14 times, 1 visits today)

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here