স্থানীয় বাসিন্দাকে জুতো পেটা করার অভিযোগ তৃণমূল নেতার স্ত্রীর বিরুদ্ধে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | August 7, 2019 | 2:18 pm

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: পুলিশের সামনে জুতো পেটার অভিযোগ উঠল এক তৃণমূল নেতার স্ত্রীর বিরুদ্ধে। মঙ্গলবার বিকেলে শিলিগুড়ি পুলিশ কমিশনারেটের এনজেপি থানার অন্তর্গত শ্রীনগর কলোনী এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গে ওই এলাকারই তৃণমূল নেতা মহম্মদ আহিদের স্ত্রী রহিনা খাতুনের গন্ডগোল বাধে এনজেপি থানা চত্ত্বরে। স্থানীয় বাসিন্দা সাধনা হালদার অভিযোগ করে বলেন, ‘তৃণমূল নেতার স্ত্রী রহিনা খাতুন হঠাৎ করে এসে আমার গলা টিপে ধরে। এরপর তার পায়ের জুতো খুলে মারে।’ এ ব্যাপারে রহিনা খাতুন তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেন।

জানা গেছে শ্রীনগর এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দা সাধনা হালদার এলাকার একটি জমিতে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছে। সম্প্রতি মহম্মদ আহিদ নামে একজন তৃণমূল নেতা যিনি এলাকায় চুটকি নামে পরিচিত তিনি দাবী করেন এই জমি তার স্ত্রীর দাদা শ্বশুড়ের। এই নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে অশান্তি শুরু হয়। এরপর জমিটি নিয়ে আদালতে মামলা করা হয়। অভিযোগ হঠাৎ মঙ্গলবার সকালে দলবল নিয়ে এসে সাধনা সরকারের বাড়িতে জনা কয়েক গুন্ডা নিয়ে হামলা চালাতে আসেন ওই তৃণমূল নেতা। তাকে বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকিও দোওয়া হয়। সে সময় তারা জানান, আদালতে মামলা চলছে তাই জমি কার তা নিয়ে আদালতই রায় দেবে। তাদের সমর্থন করেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ এভাবে দলবল নিয়ে এসে সাধবার বাড়িতে চড়াও হওয়ায় স্থানীয়রা ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। তৃণমূল নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে এদিন এনজেপি থানায় প্রায় ৬০ জন লোক নিয়ে থানার এফআইআর জমা দিতে আসেন সাধনা সরকার। শিলিগুড়ি থানার আইসি সে সময় উপস্থিত না থাকায় তার জন্য তারা থানার বাইরে অপেক্ষা করতে থাকে। অভিযোগ সে সময় হঠাৎ করে রহিনা খাতুন কয়েকজনকে নিয়ে এসে চড়াও হন সাধনার ওপর। এমনকি তাকে জুতো পেটারও অভিযোগ ওঠে। সে সময় পুলিশের সামনেই উভয় পক্ষের ধ্বস্তাধস্তি হয়। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। রহিনা খাতুন তার জুতো পেটার বিষয়টি অস্বীকার করে উল্টে বিক্ষোভকারীরা তাকে মারধোর করে বলে অভিযোগ করেন।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট