সার্জিকাল স্ট্রাইক বা এয়ার স্ট্রাইক ট্রেলার ছিল: দিলীপ ঘোষ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ পাক সংসদে দাঁড়িয়ে ইমরান খান হুমকির সুরে বলেছিলেন, এর ফলে কাশ্মীরে ফের পুলওয়ামার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। আর থিক তারপরে পাল্টা তোপ দাগলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ,সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন,আফ্রিকা থেকে ফিরে ৩৭০ ধারার বিলোপ নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেন । হুঙ্কারের সুরে দিলীপ বলেন, ‘বালাকোটে শুধুই ট্রেলার ছিল। বাকি সিনেমা দেখা বাকি আছে।’ পাল্টা দিয়ে দিলীপের বক্তব্য, ‘আমি মনে করি উনি এটা করতে পারেন। তবে করে দেখুন। সেক্ষেত্রে সার্জিকাল স্ট্রাইক বা এয়ার স্ট্রাইক ট্রেলার ছিল। এবার বাকি সিনেমাটা দেখতে পাবেন।’ পাশাপাশি এই ইস্যুতে তৃণমূলকে বাদুড় বলেও কটাক্ষ করতে শোনা যায় তাঁকে।

অন্যদিকে, ৩৭০ ধারার বিলোপ নিয়ে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরাসরি বিরোধিতা করেননি। কিন্তু পদ্ধতিকে ‘অগণতান্ত্রিক বলে বর্ণনা করেছেন। এই নিয়ে পাল্টা তোপ দেগে দিলীপ বলেন, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই বিষয়কে অস্বীকার করেননি তিনি ঘুরপথে পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। সেটা তাঁর রাজনৈতিক বাধ্যবাধকতা। আর সংসদে গিয়ে দেখছি, না পশু না পাখি। তৃণমূল তো বাদুড়ের মতো ঝুলছে।’

রামমন্দির প্রসঙ্গ টেনেও তাৎপর্যপূর্ণ মন্তব্য করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি। বলেন, ‘রামের ইচ্ছায় রামমন্দির হবে। দেশে অনুকূল পরিবেশ তৈরি হয়ে গিয়েছে। দেশের মানুষ চাইছেন আর মানুষের ইচ্ছাকে সম্মান দিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি এই কাজ করবে। ভালো কাজ তাড়াতাড়ি হওয়া উচিত। অনেক কাজ বাকি আছে। দেশে উন্নয়নের কাজ অনেক বাকি আছে। কিন্তু যেটা মানুষের আবেগের সঙ্গে যুক্ত ও বহু বছর ধরে আমাদের সুপ্ত ইচ্ছা ছিল সেটা হয়েছে। বাকিটা খুব তাড়াতাড়ি হওয়া উচিত।’ চাইত না। মানুষের সমর্থন আমরা পেয়েছি৷ অনেক রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব ব্যক্তিগতভাবেও সমর্থন করেছেন৷ আমাদের কাছে সবচেয়ে আনন্দের দিন।’

 

 

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here