রথ বিক্রির টাকায় দুঃস্থদের শিক্ষাসামগ্রী দিয়ে তাদের পাশে দাঁড়াতে চায় বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর ছাত্রছাত্রীরা

পথচলতি একজন রথ কিনছেন বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর ছাত্রের কাছ থেকে

রথের দিন কাঁথি শহর জুড়ে বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর তৈরি রং বেরংয়ের রথে ঘুরে বেড়ালো। পিছিয়ে পড়া দুঃস্থ ছেলেমেয়েদের শিক্ষাসামগ্রিক যোগান দিতে বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর অভিনব উদ্যোগ রথ নির্মাণ।

বেশ কয়েক মাস ধরে সমস্ত ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে রং বেরং রথ। গত দু-দিন কাঁথি ক্যালটেক্স মোড়ে সমস্ত রথ নিয়ে হাজির হয় বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর প্রশিক্ষক অনাথবন্ধু দাস ও তাঁর সহ যোদ্ধারা। স্বল্প মূল্যে এবং ভিন্ন ধরনের রথ দেখে পথচলিত মানুষজনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে এবং দেখতে দেখতে সমস্ত রথ বিক্রি হয়ে যায়। কয়েক মাস ধরে দিন রাত এক করে ক্ষুদে শিল্পীদের নিয়ে চলে এই কর্মসূচি।

সংস্থার কর্ণধার চিত্রশিল্পী বিষ্ণু মাইতি জানিয়েছেন, এমন উদ্যোগ আগামী দিনে আরও নেওয়া হবে কারণ শিল্পী তার শিল্পের মাধ্যমে মানুষকে যেমন মনোরঞ্জন করতে পারবে তেমন নিজেরাও স্বনির্ভর হয়ে উঠতে পারে। এই বিষয়ে খুদে শিল্পীরা জানিয়েছে, এই রথ বিক্রির সমস্ত অর্থ দিয়ে বই, খাতা, পেন, পেনসিল সহ শিক্ষাসামগ্রিক কিনে অসহায় প্রতিভাবান ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে দাঁড়াবে তারা। এলাকার কোচিকাচাদের এই উৎসাহকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সাধারণ মানুষ থেকে শুরু করে শিক্ষিত মহলের সবাই।

পিছিয়ে পড়াদের ভালো রাখার প্রতিজ্ঞা নিয়ে বিএম ফাইন আর্ট অ্যান্ড কালচার-এর ব্যতিক্রমী প্রকল্প “উত্তরণ” ‘স্বনির্ভরতার লক্ষে একধাপ’  আরও কিছুটা এগিয়ে গেল বলে মনে করছেন শিল্পী বিষ্ণু মাইতি। আগামী দিনে আরও বেশি বেশি করে এধরনের কাজে জড়িয়ে ফেলতে তিনি নিজেকে তৈরি করেছেন বলেও জানান।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *