কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রে ন্যূনতম যোগ্যতা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ গত লোকসভা নির্বাচনে জঙ্গলমহলে আশানুরূপ ফল করতে পারেনি শাসকদল। আর সেই কথা মাথায়ে রেখে ২১ বিধানসভা নির্বাচনের আগে কোমর কসে মাঠে নেমেছে রাজ্য শাসকদল। কোনো ভুল না করে বুঝে সাবধানে পা ফেলছে ঘাসফুল শিবির।জঙ্গলমহলের ভোট টানতে কর্মসংস্থানের ওপর আবারও জোর দিল রাজ্য সরকার। রাজ্যের মাওবাদী অধ্যুষিত জেলাগুলিতে কারিগরি শিক্ষার ক্ষেত্রে ন্যূনতম যোগ্যতা তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। এই জেলাগুলিতে আরও বেশি যুবক যুবতীকে স্বনির্ভর করার লক্ষ্যেই এই পদক্ষেপ।

জঙ্গলমহলে কার্যত মুখ থুবড়ে পড়েছে তৃণমূল। কেন খারাপ ফল, তা নিয়ে ইতিমধ্যে কাটাছেঁড়াও হয়ে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই তৃণমূল সুপ্রিমোর অভিযোগ করেছেন, টাকা ছড়িয়ে জঙ্গলমহলে ভোট কিনেছে বিজেপি। এবার পিকের ওপর ভরসা রেখে দলের সংগঠনকে আরও মজবুত করার প্রয়াসে নেমেছে শাসকদল। আর সেই লক্ষ্যেই রাজ্য সরকারের এই উদ্যোগ।

এতদিন কারিগরি শিক্ষাগ্রহণের ক্ষেত্রে ন‍্যূনতম যোগ‍্যতা ছিল অষ্টম শ্রেণি পাশ। কিন্তু পিছিয়ে পড়া এইসব জেলাগুলিতে পড়াশোনা করা সমস‍্যার। তার জন্যই রাজ‍্যের চারটি জেলায় ১০ টি আইটিআই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তির ক্ষেত্রে ন্যূনতম যোগ‍্যতা তুলে দেওয়া হচ্ছে বলে দফতর সূত্রে খবর।এতে আরও বেশি সংখ্যক ছাত্রছাত্রী কারিগরি শিক্ষা লাভ করে নিজের পায়ে দাঁড়াতে পারবে। জেলাগুলি হল- পশ্চিম মেদিনীপুর, ঝাড়গ্রাম, পুরুলিয়া ও বাঁকুড়া।

উল্লেখ্য, বাঁকুড়া, পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম ও পশ্চিম মেদিনীপুরে পঞ্চায়েতে ভাল ফল করেছে বিজেপি। রাজনৈতিক মহলের ব্যাখ্যা, আদিবাসী অধ্য়ুষিত এলাকায় গেরুয়া শিবিরের সমর্থন বেড়ে যাওয়ায় স্বভাবতই চিন্তিত শাসকদল।

 

 

 

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here