পাকিস্তানকে শিমলা চুক্তির কথা মনে করিয়ে দিলেন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | August 9, 2019 | 12:15 pm

নিজস্ব প্রতিনিধি: কাশ্মীর ইস্যুতে জোর ধাক্কা খেল পাকিস্তান।প্রথমে আমেরিকা, তারপর রাষ্ট্রসংঘ। ভারত কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বিলোপের পর এই বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষপ চেয়েছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বিষয়টি রাষ্ট্রসংঘেও তোলা হবে বলে জানিয়েছিল পাকিস্তান। কিন্তু, পাকিস্তানের দাবির পাল্টা, শিমলা চুক্তির কথা তাদের মনে করিয়ে দিলেন রাষ্ট্রপুঞ্জের মহাসচিব আন্তোনিয়ো গুতেরেজ। কাশ্মীর যে দ্বিপাক্ষিক বিষয় তা-ই লেখা রয়েছে শিমলা চুক্তিতে। পাশাপাশি, দুই প্রতিবেশী দেশকে সর্বাধিক সংযম দেখানোরও আর্জিও জানিয়েছেন রাষ্ট্রসংঘের মহাসচিব।

আন্তোনিয়ো গুতেরেজের মুখপাত্র জানিয়েছেন, ‘মহাসচিব ১৯৭২ সালে ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে হওয়া দ্বিপাক্ষিক চুক্তি, যা শিমলা চুক্তি নামে পরিচিত, তার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন। যেখানে বলা আছে, রাষ্ট্রপুঞ্জের চার্টার মেনে দু’দেশ জম্মু ও কাশ্মীরের অবস্থা নিয়ে শান্তিপূর্ণ উপায়ে সিদ্ধান্ত নেবে।’পাশাপাশি, কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকারের কড়াকড়ির বিষয়েও উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন তিনি। সেখানকার বাসিন্দাদের মানবাধিকার যাতে লঙ্ঘিত না হয় সে বিষয়ে নজর রাখার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি।

উল্লেখ্য, গত সোমবার জম্মু-কাশ্মীরের ৩৭০ ধারা বাতিলের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করে ভারত। এরপরেই বিষয়টি নিয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে পাকিস্তান। কাশ্মীর ইস্যুতে আন্তর্জাতিক মহলের হস্তক্ষেপ চেয়ে পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান জানান, কাশ্মীরিদের উপর মোদি সরকারের সেনাবাহিনীর অত্যাচার রুখতে এগিয়ে আসা উচিত আন্তর্জাতিক মহলের। বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চেও সরব হবে বলে জানায় পাকিস্তান। এই ইস্যুতে ইতিমধ্যেই ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক এবং বাণিজ্যিক সম্পর্ক ছিন্ন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক সরকার। এই বিষয়টি নিয়ে রাষ্ট্রসংঘের পাশাপাশি আমেরিকার কাছেও নালিশ করেছিল পাকিস্তান। কিন্তু আমেরিকা ইতিমধ্যেই পাকিস্তানকে পরামর্শ দিয়েছে প্রতিবেশী দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক না গলিয়ে, নিজেদের দেশে সন্ত্রাসবাদ দমনে মন দেওয়ায়।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট