কালনায় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতিকে হেনস্থার অভিযোগ ব্লক প্রশাসনের কর্মচারির বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কালনা: ব্লক অফিসের এক সরকারি কর্মচারির আচরণে ও কথায় অপমানিত বোধ করে সরাসরি মহকুমাশাসকের কাছে অভিযোগ জানালেন পূর্ব বর্ধমানের কালনা ২ ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি। এই ঘটনায় সুবিচার না পেলে সরকারি অফিস ও গাড়ি বয়কট করবেন বলে সাফ জানান তিনি। শুক্রবার এবিষয়ে তিনি কর্মাধ্যক্ষ সহ অন্যান্য সদস্যরা মহকুমা শাসকের দপ্তরের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন ব্লক প্রশাসনের কর্মচারির বিরুদ্ধে। যদিও মহকুমাশাসক বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন।

শুক্রবার কালনা মহকুমা শাসকের কাছে কালনা ২ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি নিলীমা কপ্টি অভিযোগ করে জানান, ‘বৃহস্পতিবার ব্লক অফিসে বিডিও একটি রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন প্রায় আড়াই ঘন্টা। সেই সময় ছাত্রছাত্রী থেকে অনেকেই পরিষেবা নিতে এসে তা না পেয়ে ফিরে যান ও অনেকে সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিতে থাকেন। দুই জন বৃদ্ধ আবাস যোজনা প্রকল্পে খোঁজ খবর নেওয়ার জন্য বসেছিলেন। মিটিং শেষ হতেই ব্লক প্রশাসনের কর্মচারি বিকাশ বাগকে বারবার ডেকে পাঠালেও তিনি না আসায় ওনার টেবিলে গেলে উনি সাফ জানিয়ে দেন যে, আমি বিডিওর ষ্টাফ আপনার কথা শুনবো না। স্বাভাবিক কারণে এই ঘটনায় অপমানিত বোধ করি। শুধু এই ঘটনাই নয় ব্লক প্রশাসনের বারবার এই অসহযোগিতা চলতে থাকলে পঞ্চায়েত সমিতি, বিডিও অফিস ও গাড়ি বয়কট করবো। এর সুবিচার চেয়ে মহকুমাশাসককে লিখিতভাবে জানাই।’

উল্লেখ্য, বিভিন্ন সরকারি প্রকল্প থেকে অন্যায়ভাবে মানুষকে বঞ্চিত করা হচ্ছে ও পঞ্চায়েত সমিতিকে অন্ধকারে রেখে অনেক সিদ্ধান্তও নেওয়া হচ্ছে বলে কয়েকদিন আগেই সরাসরি ব্লক প্রশাসনের বিরুদ্ধে তোপ দেগে ছিলেন তিনি। এরপর কালনা-২ ব্লক অফিসেই একটি স্মারকলিপি জমা দেন শাসকদলের জনপ্রতিনিধি সহ স্থানীয়রা। তারপর শুক্রবারের এই বিষয়ে বিডিও মিলন দেবগড়িয়া বলেন, ‘পরিষেবা না পেয়ে ফিরে যাওয়ার বিষয়টা আমার জানা নেই। আমার স্টাফদের বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ থাকলে উনি তো আমাকে জানাতে পারতেন। আমাকে কিছু জানানো হয়নি।’ মহকুমা শাসক নীতেশ ঢালি বলেন,‘বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

MIJANUR

(Visited 4 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here