লৌহপুরুষের জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠন কার্যকর করার সিদ্ধান্ত কেন্দ্রের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ ৩৭০ ধারা প্রত্যহারের পর জম্মু ও কাশ্মীরকে দু’টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার প্রস্তাব পাশ হয়েছে । জম্মু ও কাশ্মীর পুনর্গঠনের প্রস্তাবে সই করেছেন রাষ্ট্রপতি। ৩১ অক্টোবর সর্দার বল্লভভাই প্যাটেলের জন্মদিনে রাজ্যটির পৃথকীকরণ কার্যকর করা হবে। সর্দার বল্লভ প্যাটেলকে সম্মান জানাতেই এই পদক্ষেপ বলে জানিয়েছে সরকার ।

প্রসঙ্গত,এদিকে রাজ্য ভেঙে পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে আধিকারিকদের বিভক্ত করতে প্যানেল গঠন করতে চলেছে কেন্দ্র । এক সরকারি আধিকারিক এই বিষয়ে বলেন, “ক্যাডার বন্টনের কাজ বাকি রয়েছে । বেশিরভাগ আধিকারিক চেয়েছেন, জম্মু ও কাশ্মীরে থাকতে । সামান্য কয়েকজন লাদাখ ক্যাডার বেছেছেন ।”দুর্গমতার কারণেই মূলত তাঁরা লাদাখে যেতে চাইছেন না বলে অনুমান করা হচ্ছে ।নতুন নিয়োগের ক্ষেত্রে বন্টনের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, ‘অরুণাচল‌ প্রদেশ, গোয়া, মিজোরাম এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল (AGMUT) ক্যাডার’-কে ।

মোট আইএএস ও আইপিএস আধিকারিকের সংখ্যা ২৭৭ বলে জানাচ্ছেন এক সরকারি কর্মী । তিনি বলেন, “আধিকারিকদের কাছে জানতে চাওয়া হবে কোথায় তাঁরা থাকতে চান । কেন্দ্রীয় সরকারের হাতে ক্ষমতা রয়েছে যে কোনও নির্দেশকে পর্যালোচনা করার । কিন্তু লেফটেন্যান্ট গভর্নর বদলির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবেন ।”

জম্মু-কাশ্মীরে আপাতত বিধানসভা আসন থাকবে ১০৭টি। পরে তা বাড়িয়ে করা হবে ১১৪টি। অন্যদিকে লাদাখে কোন বিধানসভা থাকছে না। বরং চণ্ডীগড়ের কায়দায় গড়ে তোলা লাদাখের দায়িত্বে থাকবেন একজন লেফট্যানেন্ট গভর্নর। জম্মু-কাশ্মীরের বাকি অংশ যেহেতু পাক অধিকৃত তাই বিধানসভার ২৪টি আসন খালি থাকবে।

অন্যদিকে আইনশৃঙ্খলা প্রসঙ্গে ডিজি মুনীর খান এদিন বলেন, জম্মুতে পরিস্থিতি স্বাভাবিক। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সবরকম ব্যবস্থাই নেওয়া হচ্ছে।

 

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here