ExclusiveFeaturedReader's ChoiceTop Newsলাইফস্টাইলশরীর-স্বাস্থ্য

বর্তমান লাইফস্টাইলই পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব ও পুরুষত্বহীনতার জন্য দায়ী

নিজস্ব সংবাদদাতা: দেশে এখন পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব সংখ্যা বেশি। পূর্ব ভারতের কলকাতায় প্রথম সবচেয়ে আধুনিক ও স্বয়ংসম্পূর্ণ পুরুষদের বন্ধ্যাত্ব ও পুরুষত্বহীনতা ক্লিনিক চালু করল অ্যাপোলো ক্লিনিক হাসপাতাল। পাশাপাশি এই হাসপাতলে চালু করা হয়েছে পুরুষাঙ্গ বিকৃতি ঠিক করার অপারেশন। এই ক্লিনিকে যৌন মিলনের জন্য পুরুষাঙ্গের দৃঢ়তার অভাব এবং বীর্যপাতের সমস্যা, অপারেশনের মাধ্যমে পুরুষাঙ্গের বিকৃতি ঠিক করা প্রভৃতি বিষয়ে আধুনিক পদ্ধতিতে চিকিৎসা করা হবে। এদিনের অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অ্যাপোলো গ্লেনেগলস হাসপাতালের সিনিয়র কনসালটেন্ট ইউরোলজিস্ট ড: অমিত ঘোষ ও ড: অতনু জানা।

ম্যাসাচুসেট্স ম্যানেজিং স্টাডিতে দেখা গিয়েছে ৪০ থেকে ৭০ বছর বয়সী পুরুষদের মধ্যে প্রায় ৫২ শতাংশ যৌন মিলনের জন্য পুরুষাঙ্গের উত্থানের অভাবে ভোগেন। এদের মধ্যে ১৭ শতাংশের সামান্য, ২৫ শতাংশের মাঝারি ধরনের, ১০শতাংশের পুরোপুরি উত্থান শক্তি নেই বললেই চলে। পুরুষাঙ্গের উত্থান শক্তি ববা দৃঢ়তা না থাকার সমস্যাকে অবহেলা করা উচিত না। যার ফলে কার্ডিওভাসকুলার রোগের ঝুঁকি বাড়ে। এই সমস্যা দূর করতে হলে ইন্ট্রাসভারনাস ইঞ্জেকশন, ভ্যাকুয়াম ইরেকশন ডিভাইস, পেনাইল প্রস্থেসিসের (শরীরে কোন কিছু জুড়ে দেওয়া হয়) পাশাপাশি মেডিকেল সাপোর্ট দেওয়া হয় হরমোন চিকিৎসায়। যেমন- টেস্টোসটেরন বদল ও মনস্তাত্ত্বিক- যৌন  কাউন্সিলিং। এর সঙ্গে মেডিকেটেড ইউরেথ্রাল সিস্টেম রোগীদের সাহায্য করা হয় বলে জানালেন ড: অতনু জানা।

পুরুষাঙ্গের উত্থান শক্তিহীনতায় বড় সমস্যা কারণ হল-মনস্তত্ত্ব, হৃদরোগজনিত কারণ (কার্ডিওভাসকুলার ডিজিজ, হাইপারটেনশন, ডায়াবেটিস, বড় ধরনের অপারেশন কিংবা রেডিওথেরাপি) নার্ভাস সিস্টেমের গোলমালের কারণ (একাধিক নার্ভ কঠিন হয়ে যাওয়া, পারকিনসন, টিউমার, স্ট্রোক, শিরদাঁড়ার রোগ, পেরিফেরাল টি2ডিএম, মাদকাসক্তি, দেহের বিভিন্ন অংশে স্নায়ুর দুর্বলতা, ব্যথা, অসাড় হয়ে যাওয়া, অপারেশন), দেহের এ্যানাটমী সংক্রান্ত রোগ, পেরোনিজ ডিজিজ, জন্ম থেকেই পুরুষাঙ্গ বাকা থাকার সমস্যা, হরমোন সংক্রান্ত রোগ (হাইপোগোনাডিজম, হাইপারপ্রোল্যাকটিনেমিয়া, হাইপার ও হাইপ্রো  থাইরয়েডের সমস্যা, কাশিন্স ডিজিজ) হয়ে থাকে। এছাড়া অপারেশনের মধ্যে পড়ে  পুরুষাঙ্গের কিছু অনুপ্রবেশ  করানো, শুক্রনালীর শিরা সংশোধন, অন্ডকোষ থেকেই ইউরেথ্রায় বীর্য বহন করে নিয়ে যায় যে টিউব, তাতে কোন বাধা থাকলে তা সরিয়ে দেওয়া, পুরুষাঙ্গ বাঁকা থাকলে তা ঠিক করা, এতে ব্যবহার করা হয় পেরিকার্ডিয়াল প্যাচ।

অপরদিকে, ডাক্তার অমিত ঘোষ বলেন, “বর্তমানে মানুষের লাইফস্টাইলের জন্য এই রোগের আধিক্য অধিক মাত্রায় বৃদ্ধি পাচ্ছে। শারীরিক ও মানসিক চাপ বাড়ার ফলে পুরুষাঙ্গের উত্থান শক্তিহীনতা রোগের প্রকোপ দেখা দিচ্ছে। এখন বেশি মাত্রায় কম বয়সীদের মধ্যে এই রোগ সৃষ্টি হচ্ছে। এটি সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা। বিশেষ করে এই রোগ যেসব ছেলেরা রাতের বেলায় বিপিও সংস্থায় কাজ করে তাদের মধ্যে দেখা দিচ্ছে। এই রোগের ফলে কার্ডিওভাসকুলার রোগের সৃষ্টি হতে পারে। যৌন মিলন মানুষকে আনন্দ দেয়। আবার যৌন মিলনে অক্ষমতা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত সমস্যা সৃষ্টি করে। এই ধরনের রোগীদের সংখ্যা হ্রাস করার জন্য এই ক্লিনিকের সূচনা করা হল।” তিনি আরও বলেন, “এই রোগে থেকে অব্যাহতি পেতে হলে ধূমপান ছাড়তে হবে, শরীরের ওজন ঠিক রাখতে হবে, নিয়মিত শরীরচর্চা করতে হবে, মদ্যপান কমাতে হবে, মানসিক চাপ কমতে হবে, যেমন ইচ্ছা ওষুধ খেলে হবে না, ডিএম, এইচটিএন ও হৃদরোগ নিয়ন্ত্রণে রাখত হবে।”

(Visited 38 times, 1 visits today)

Tags

Related Articles

Back to top button
Close
Close