অনুব্রত মণ্ডলের অবস্থা এখন স্থিতিশীল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | July 8, 2019 | 11:05 am

অনুব্রত মণ্ডলের অবস্থা এখন স্থিতিশীল, জানালেন চিকিৎসকরা 

কলকাতা: অসুস্থ বীরভূমের ডাক সাইটে তৃণমূল নেতা অনুব্রত মণ্ডল ৷ বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতির স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটায় তাঁকে কলকাতার এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ৷ তাঁর জন্য তৈরি হয়েছে ১০ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড ৷ এসএসকেএম হাসপাতালের উডবার্ন ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন তৃণমূলের বীরভূম জেলা সভাপতি।

রবিবার চিকিৎসকরা জানান, তাঁর অবস্থা এখন স্থিতিশীল। হাসপাতাল সূত্রে খবর, হাইপার টেনশনে ভুগছেন তিনি ৷ ডায়াবেটিসেরও সমস্যা রয়েছে তাঁর ৷ উচ্চ রক্তচাপ
জনিত সমস্যা রয়েছে তাঁর। সঙ্গে রয়েছে সুগারও। এদিকে আবার কার্বোঙ্কল হয়েছে। সব মিলিয়ে গুরুতর অসুস্থ অনুব্রত মণ্ডল। কিছুদিন ধরেই শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভুগছিলেন অনুব্রত। পাশপাশি ছিল ফিশচুলা সংক্রান্ত সমস্যা। আপাতত চিকিৎসকদের নজরদারিতে রয়েছেন তিনি ৷ শুক্রবার এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি। তাঁর চিকিৎসার জন্য গঠন করা হয় মেডিকেল বোর্ড। অস্ত্রোপচারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।
আপাতত অনুব্রতর শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল। তবে, উচ্চ রক্তচাপ রয়েছে। পাশপাশি রক্তে শর্করার মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে জানান চিকিৎসকরা।

গত বছর আগস্টে এই একই সমস্যা নিয়ে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন অনুব্রত। সেইসময়ে তাঁর উচ্চ রক্তচাপ ও মধুমেয় সমস্যার কথা জানিয়েছিলেন চিকিৎসকরা। লোকসভা ভোটের ফল বেরনোর পর থেকেই খানিকটা গুটিয়ে গিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। লোকসভা ভোটের ফলে জোর ধাক্কা খেয়েছে তৃণমূল। আর তারপরই দলের নেতা-মন্ত্রীদের কড়া ক্লাস নেন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূল সুপ্রিমোর রোষের মুখে পড়েন একাধিক নেতা-মন্ত্রী। নেত্রীর কাছে ‘ধমক’ খান তাঁর প্রিয় ‘ অক্সিজেন কম কেষ্টও’। অনুব্রত মণ্ডলের কাছে পরাজয়ের কৈফিয়ত চান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হয় নদিয়ার পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব থেকে। ভোটের আগে নির্বাচনী প্রচারে বীরভূম গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন,  কেষ্ট ওরা তোমাকে
আটকানোর চেষ্টা করবে। পিছনে লাগবে। তুমিও একটু ধমকাবে, চমকাবে, বাঘের বাচ্চার মতো লড়াই করবে’।

কেন হারলে এতগুলো জায়গায়’ ? ভরা বৈঠকে নেত্রীর চোখা প্রশ্নের মুখে পড়েন বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি। অথচ, এই অনুব্রত মণ্ডলের সাংগঠনিক সাফল্য খুশি হয়ে বীরভূম জেলার বাইরে তাঁকে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পূর্ব বর্ধমানের একাংশ, মুর্শিদাবাদ, নদিয়ার পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয় তাঁকে। শেষে বিষ্ণুপুরেরও বিশেষ পর্যবেক্ষক করা হয়েছিল অনুব্রত মণ্ডলকে। ভোটের আগে
অনুব্রত মণ্ডল হুঙ্কার দিয়েছিলেন, রাজ্যে ৪২টি আসনেই জিতবে তৃণমূল। কিন্তু ভোটের ফল বেরতে দেখা যায় সব হিসেব উলটে পালটে গেছে। বর্ধমান-দুর্গাপুর, রানাঘাট, বিষ্ণপুরে জয়ী হয় বিজেপি। বহরমপুর জিতে নেন অধীর চৌধুরী। এর ফলেই অনুব্রত মন্ডলের হাইপার টেনশন বেড়েছে বলেই ওয়াকিবহাল মহলের ধারনা।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *