মাদ্রাসা নিয়োগে স্বজনপোষণের অভিযোগ, প্রতিবাদে পথ অবরোধ

শ‍্যাম বিশ্বাস,  উওর ২৪পরগনা:  মাদ্রাসায় নিয়োগে স্বজনপোষণের অভিযোগ তুলে প্রতিবাদে রাস্তা অবরোধ করল স্থানীয় বাসিন্দা থেকে মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীরা। বসিরহাট মহকুমার বাদুড়িয়া থানার কাটিয়াহাটের ঘটনা। ভারত বাংলাদেশ ঘোজাডাঙা সীমান্ত রোডে বেঞ্চ টেবিল পেতে, হাতে ফেস্টুন ব্যানার নিয়ে অবরোধ শুরু করে তারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে যায় বাদুড়িয়া থানার পুলিশ।

অভিযোগ, সম্প্রতি কাটিয়াহাট শাহ রজব আলি সিনিয়র মাদ্রাসায় বেশ কয়েকজনকে নিয়োগ করা হয়েছে। যোগ্য প্রার্থীকে না দিয়ে মোটা টাকার বিনিময়ে কয়েকজনকে এই চাকরি দেওয়া হয়েছে।

প্রতিবাদীদের দাবি, অবিলম্বে মাদ্রাসায় স্বজনপোষণ নিয়োগ পদ্ধতি এমনকি শিক্ষকের পরিবারের সদস্যদের নিয়োগ করা বন্ধ করতে হবে। স্বচ্ছতা আনতে হবে। যোগ্য প্রার্থীকে বসাতে হবে মাদ্রাসায়। এই আন্দোলন দীর্ঘদিন চলবে বলে জানিয়েছেন তারা।

{আরও পড়ুন:ডেঙ্গুর থাবায় মৃত্যু হল কলকাতা পুরসভার এক আধিকারিকের}

এমনকি ৭৩ শতক জমি কেনা হয়েছে মাদ্রাসার জন্য প্রায় ৪০ লক্ষ টাকায়। পুরোটাই অনুদান থেকে নিয়ে আসা এই টাকা। অনেকটাই আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠেছে মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান মোল্লার বিরুদ্ধে। এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন প্রধান শিক্ষক।

স্থানীয় বাসিন্দা আনিস মন্ডল বলেন, সীমান্ত এলাকার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের ছাত্ররা এই মাদ্রাসায়  পড়ে। স্থানীয় এক বাসিন্দা জমি দান করেছেন। যাতে পঠন-পাঠন শিক্ষাব্যবস্থা ভালো হয়। কিন্তু মাদ্রাসায় সেই ক্ষমতার অপব্যবহার করা হচ্ছে।

আমরা চাই সঠিকভাবে মাদ্রাসার নিয়োগ পদ্ধতি থেকে শুরু করে স্বচ্ছতা আনতে। এমনকি নিজের পরিবারের লোককে কোন চাকরি দেওয়া যাবে না। যোগ্য প্রার্থীকে দিতে হবে।

প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান মোল্লা বলেন, সমস্ত অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। এই মাদ্রাসায় দশম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষাদান করা হয় ছাত্রদের। প্রায় শতাধিক ছাত্র- রয়েছে। যাতে সঠিকভাবে হয় আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি। নিয়ম মেনেই মাদ্রাসায় নিয়োগ পদ্ধতি হয়। যোগ্য প্রার্থীই মাদ্রাসায় নিযুক্ত হয়।

তবে প্রধান শিক্ষক নুরুজ্জামান মোল্লা তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগের দায়ভার তুলে দেন মাদ্রাসা পরিচালন সমিতির সম্পাদকের মজনুর রহমান বিরুদ্ধে।

bipasha

(Visited 23 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here