অনাস্থা জট কাটাতে আইনজীবীদের দ্বারস্থ সব্যসাচী

অনাস্থার মুখোমুখি হতে হাইকোর্টে আইনজীবিদের পরামর্শ নিলেন সব্যসাচী দত্ত

কলকাতা: অনাস্থার মুখোমুখি হতে আইনজীবিদের দ্বারস্থ হলেন সব্যসাচী দত্ত।বিধাননগর পুরসভার জট কীভাবে কাটানো যায়, তা নিয়ে হাইকোর্টের আইনজীবীদের সঙ্গে শুক্রবার আলোচনা করেন মেয়র সব্যসাচী দত্ত। অনাস্থা মোকাবিলায় কী করা উচিৎ? তা নিয়ে পরামর্শ নিতেই আইনজীবীদের দ্বারস্থ হন তিনি।

এদিন বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নির্বাচনে ভোটও দেন তৃণমূল বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। কেননা তিনিও পেশায় আইনজীবী। এদিন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে বৈঠকের প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান তিনি। হাইকোর্টে সব্যসাচী দত্ত বলেন, ‘অনাস্থা নিয়ে আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করছি। পরামর্শ নিতেই এসেছি হাইকোর্টে।’ একাধিকবার মুকুল রায়ের সঙ্গে বৈঠক ও তৃণমূল বিরোধী মন্তব্যে সব্যসাচীর বিজেপি যোগদান নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরেই জল্পনা চলছে। তৃণমূল ভবনে মেয়র ফিরহাদ হাকিম ও বিধাননগরের কাউন্সিলরদের বৈঠকেও ডাকা হয়নি সব্যসাচী দত্তকে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে দলের বিধায়কদের নিয়ে বৈঠক করেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই বৈঠকেও ছিলেন না রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। তবে ঘনিষ্ঠ মহলে তিনি জানিয়েছেন, দল তাঁকে যতক্ষণ না বলবে তিনি মেয়র ও বিধায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে যাবেন। যদিও তাঁর এই বক্তব্যকে স্ববিরোধী বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তাঁদের মতে, সব্যসাচী একাধিকবার তৃণমূলে থাকার দাবি করেছেন। কিন্তু দলীয় স্তরে আনা অনাস্থার বিরুদ্ধে স্ট্র‌্যাটেজি ঠিক করতে পরামর্শ নিচ্ছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের থেকে। রাজ্য রাজনীতিতে এই ধরনের কৌশলের আশ্রয় নিতে আগে কাউকে দেখা যায়নি। ওই বৈঠকের ঠিক আগেই বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে নিজের বাড়িতে আলোচনা করেন তিনি। যদিও মুকুল রায় বৈঠক শেষে বেরিয়ে দাবি করেন, ‘সব্যসাচীর সঙ্গে দেখা করতে এসেছিলাম। বিজেপিতে যোগদান নিয়ে দু’জনেই প্রসঙ্গ এড়িয়ে যান। সেক্ষেত্রে জটিলতা কাটাতে মুকুল রায়ও সব্যসাচী দত্তকে আইনজীবীদের পরামর্শ নেওয়ার কথা বলতে পারেন বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। দল বিরোধী কাজ ও অসহযোগিতার অভিযোগে তাঁর বিরুদ্ধে অনাস্থা এনেছেন তাঁরই দলের কাউন্সিলররা।

 

আগামী ১৮ জুলাই হবে সেই অনাস্থার ভোটাভুটি। তবে এখন থেকেই ঘুঁটি সাজাতে শুরু করেছেন বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্ত। সূত্রের খবর, পরবর্তী রণকৌশল ঠিক করতে ইতিমধ্যে আইনজীবীদের পরামর্শ নিচ্ছেন তিনি। আইনি পথে লড়াইয়ের কৌশল বাতলাতে নাকি হাইকোর্টের বেশ কয়েকজন আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগ করেছেন নিউটাউন-রাজারহাটের বিধায়ক। গত রবিবার যখন সল্টলেকের সুইমিং ক্লাবে সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে যখন বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের বৈঠক হচ্ছিল, সেখানেও আইনজীবীরা ছিলেন। বিধাননগর পুরনিগমের জট কাটাতে আইনি বিষয়টি যেভাবে তৃণমূল কংগ্রেস খতিয়ে দেখছে, ঠিক পাশাপাশি সব্যসাচী দত্তও আইনি খুঁটিনাটি জেনে নিচ্ছেন। সেক্ষেত্রে সব্যসাচী দত্ত মনে করলে আগে থেকেই আইনি পদক্ষেপ করতে পারেন। অর্থাৎ জটিলতা কাটাতে তিনি মামলাও করতে

পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। তবে এখনই বিষয়টি সুনিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। আপাতত এদিন আইনজীবীদের সঙ্গে কথা বলার পরই পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন বলে জানা গেছে।

(Visited 6 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here