র‍্যালির মাধ্যমে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ

র‍্যালির মাধ্যমে সেনাবাহিনীতে নিয়োগ হবে শিলিগুড়িতে

সোলজার জেনারেল ডিউটি, সোলজার টেকনিক্যাল, সোলজার টেকনিক্যাল (অ্যাভিয়েশন/ অ্যামিউনিশন এগজামিনার), সোলজার নার্সিং অ্যাসিস্ট্যান্ট/ নার্সিং অ্যাসিস্ট্যান্ট (ভেটেরিনারি), সোলজার ক্লার্ক/ স্টোর কিপার টেকনিক্যাল, সোলজার ট্রেডসম্যান পদের জন্য সরাসরি র‍্যালির মাধ্যমে কয়েকশো অবিবাহিত তরুণকে নিয়োগ করবে ভারতীয় সেনাবাহিনী শিলিগুড়ি আর্মি রিক্রুটিং অফিসের মাধ্যমে। কেবলমাত্র জলপাইগুড়ি, দার্জিলিং, কালিম্পং, মালদা, আলিপুরদুয়ার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর এবং কোচবিহার জেলার প্রার্থীরাই এই র‍্যালিতে অংশ নিতে পারবেন। এই নিয়োগ হবে শিলিগুড়ির বৈকুন্ঠপুর আর্মি গ্রাউন্ডে। চলবে আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। তার আগে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন ও আবেদন করতে হবে আগামী ৭ জুলাই থেকে ২০ আগস্টের মধ্যে।

ন্যূনতম ৪৫ শতাংশ নম্বর নিয়ে দশম শ্রেণি পাশ (প্রতিটি বিষয়ে ৩৩ শতাংশ করে নম্বর থাকতে হবে)। সিবিএসই/ অন্যান্য বোর্ডের গ্রেডিং সিস্টেমের ক্ষেত্রে প্রতিটি বিষয়ে ‘ডি’ গ্রেড এবং মোট ‘সি২’ গ্রেড থাকতে হবে। বয়সসীমা: ১-১০-২০১৯ তারিখে সাড়ে সতেরো থেকে একুশ বছরের মধ্যে (জন্মতারিখ ১ অক্টোবর ১৯৯৮ থেকে ১ এপ্রিল ২০০২)। দৈহিক মাপজোক: উচ্চতা অন্তত ১৬৯ সেমি, বুকের ছাতি না ফুলিয়ে ও ফুলিয়ে যথাক্রমে ৭৭ সেমি ও ৮২ সেমি। ওজন ন্যূনতম ৫০ কেজি।

প্রার্থী বাছাইয়ের দিন যেসব নথির মূল এবং প্রত্যয়িত (গেজেটেড অফিসার বা সমতুল কাউকে দিয়ে) প্রতিলিপি (দুটি করে কপি) সঙ্গে নিয়ে যেতে হবে তা হল-

১) মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক, গ্র্যাজুয়েশন ও উচ্চতর কোনো যোগ্যতা থাকলে তার রেজিস্ট্রেশন সার্টিফিকেট, অ্যাডমিট কার্ড, রেজাল্ট ও বোর্ড সার্টিফিকেট। প্রভিশনাল/অনলাইন সার্টিফিকেট হলে কালিতে সই করে সংশিত হতে হবে। ওপেন স্কুলিং থেকে পাশ হলে বিইও/ডিইও-র প্রতিস্বাক্ষরিত স্কুললিভিং সার্টিফিকেট দরকার। ২) গ্রাম প্রধান, সরপঞ্চ বা চেয়ারম্যানরে অফিস থেকে গোল সীলমোহরের ছাপ দেওয়া ক্যারেক্টার সার্টিফিকেট (৬ মাসের পুরানো হলে চলবে না)। সার্টিফিকেটে ছবি থাকতে হবে এবং প্রার্থীর ২১ বছরের কম হলে ‘হি ইজ আনম্যারেড’ কথাটিও সার্টিফিকেটে লেখা থাকা চাই। স্কুল/কলেজের থেকেও ক্যারেক্টার সার্টিফিকেট আনতে হবে শেষ পড়া স্কুল/কলেজের প্রধানের ইস্যু করা। ৩) মাধ্যমিক অনুত্তীর্ণদের ক্ষেত্রে ডিস্ট্রিক্ট ইনস্পেক্টর অব স্কুল ও ডিস্ট্রিক্ট এডুকেশন অফিসারকে দিয়ে কাউন্টার সাইন করানো ‘স্কুল লিভিং’ বা ‘স্কুল ট্রান্সফার সার্টিফিকেট’। ৪) জেলাশাসক বা তহশিলদারের ইস্যু করা বাসিন্দা (ডোমিসাইল)/ নেটিভিটি সার্টিফিকেট (প্রার্থীর ছবি সহ)। ৫) তপশিলি উপজাতি প্রার্থীদের ক্ষেত্রে জেলাশাসক, এসডিএম, এসডিওর দেওয়া কাস্ট সার্টিফিকেট, তাতে ধর্মের (শিখ/হিন্দু/মুসলিম/খ্রিস্টান) উল্লেখ না থাকলে তহশিলদার/এসডিএমের ইস্যু করা ধর্ম সার্টিফিকেটও লাগবে বলা হয়েছে। ৬) নির্ধারিত বয়ানে/ অ্যাফিডেবিটে বৈবাহিক বিষয়ে সার্টিফিকেট। ৭) তিন মাসের মধ্যে তোলা ২০ কপি পাসপোর্ট মাপের রঙিন ছবি, প্রত্যয়িত না করা। ছবির ব্যাকগ্রাউন্ড সাদা হতে হবে। কম্পিউটার ফটো অথবা ডিজিট্যাল ফটো বা ফটোশপ গ্রহণযোগ্য হবে না। ৮) এনসিসির ‘এ’, ‘বি’ ও ‘সি’ সার্টিফিকেট যদি থাকে। ৯) রাজ্য বা জাতীয় পর্যায়ের খেলাধূলায় গত ২ বছরের মধ্যে প্রথম বা দ্বিতীয় স্থানাধীকারী হলে তার সাটিফিকেট। ১০) প্রাক্তন সমরকর্মীদের ডিসচার্জ সার্টিফিকেট। ডিফেন্স সিকিউরিটি কোরের ক্ষেত্রে রি-এনরোলমেন্টের জন্যও ওপরের মতো পাসপোর্ট মাপের ২০ কপি ফটো, তাছাড়া পার্মানেন্ট রেসিডেনশিয়াল সার্টিফিকেট, সিভিল এডুকেশন ক্যারেক্টার ও সিঙ্গল ওয়াইফ সার্টিফিকেট, মেডিকেল টেস্ট রিপোর্ট এবং প্রতিটি সার্টিফিকেটের দুটি করে ফটোকপি সঙ্গে রাখতে হবে।

কোনো জিজ্ঞাসা থাকলে ফোন করতে পারেন ০৩৫৩-২৫৯০০৪০ বা ৮৯০০০৯২১৯৪ বা ৮৯০০০৯৫৮২০ নম্বরে।

(Visited 27 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here