জগন্নাথ নয়, সিয়ারশালের রাজবাড়ির কুলদেবতার রথযাত্রায় মেতে উঠেছেন সাধারণ মানুষ

সিয়ারশালের রাজবাড়ির রথযাত্রা

আসানসোল: শিল্পাঞ্চলের একমাত্র পিতলের রথ। প্রাচীন জমিদার বাড়ির ঐতিহ্য ও ভিনদেশি সংস্কৃতির মিশেল শিম্পাঞ্চলের রথযাত্রা উৎসব। পুজোর প্রাচীন রীতি আচার অনুষ্ঠানে এখনও রয়েছে। সাবেকিয়ানার ছাপ।  তবে সাবেকিয়ানা কিছুটা ফিকে হচ্ছে দিনদিন। আসানসোলের রানীগঞ্জের সিয়ারশালের জমিদার গবিন্দপ্রসাদ পন্ডিত শুরু করেছিলেন রথযাত্রা উৎসব।

এখানে রথে জগন্নাথদেব থাকেন না। থাকেন, কুলদেবতা দামোদরচন্দ্র। রথটি প্রথমে ছিল কাঠের তৈরি। ১৮৩৬ সালে এই রথযাত্রা শুরু করেন তৎকালীন জমিদার তথা সিয়ারশালের কোলিয়ারির মালিক। গোবিন্দ প্রসাদ।

কোনও কারণে সেটি আগুনে পুড়ে গেলে ১৯৩৩ সালে গোবিন্দপ্রসাদের মেয়ে হরসুন্দরীদেবী মাহেশের রথের অনুকরণে তৈরি করেন পিতলের রথ। বৃহস্পতিবার রথে চাপিয়ে কুলদেবতাকে নিয়ে যাওয়া হয় পুরনো রাজবাড়িতে। জানা যায় এই পিতলের রথটি ভারী হওয়ার কারণে লরি দিয়ে টানা হয়।

৯ দিন পর দামোদরচন্দ্র রথে চেপে ফিরে আসবেন নতুন রাজবাড়িতে। বৃহস্পতিবার থেকে শুরু করে রথের মেলা থাকবে দশ দিন। এই মেলাতে বিভিন্ন ধরনের দোকানপাট এবং মিষ্টির দোকান থাকবে বলে জানিয়েছেন ভক্তরা।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *