টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলার সিদ্ধান্ত রেল ও রাজ্য সরকারের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: শনিবার টালা ব্রিজ পরিদর্শনে যাবে রেল এবং পূর্ত দপ্তর। সূত্রের খবর, পরিদর্শন করে ১৫ দিনের মধ্যে মুখ্যমন্ত্রীকে রিপোর্ট জমা দেবেন তারা। এদিনের বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়েছে রেল রেলের অংশ ভাঙবে এবং রাজ্য সরকার রাজ্য সরকারের অংশ ভাঙবে।

বাস যাত্রীদের ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধার বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এদিনের বৈঠকে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, সরকারি বাস বদল করলেও একই রুটের ক্ষেত্রে আলাদা করে ভাড়া দিতে হবে না যাত্রীদের।

মাঝেরহাট সেতু ভেঙে পড়ার পর থেকেই টনক নড়ে প্রশাসনের। শুরু হয় শহরের একের পর এক সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা। টালা ব্রিজ অর্থাৎ হেমন্ত সেতুর স্বাস্থ্য নিয়েও হতাশাজনক রিপোর্ট দেয় বিশেষজ্ঞ সংস্থা৷ রিপোর্টে জানান হয়, টালা ব্রিজের অবস্থা ভাল নয়। উত্তর কলকাতার একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সেতু টালা ব্রিজ। এই সেতুই উত্তরের সঙ্গে কলকাতার সংযোগ স্থাপন করে। সারাদিনই প্রচুর গাড়ির চাপ থাকে এই ব্রিজের উপর। আর সেই ব্রিজেই এবার বিপদের আশঙ্কা। বেহাল সেতু দেখে বিশেষজ্ঞরা ভেঙে ফেলার পরামর্শ দিয়েছেন।

ভারী পণ্যবাহী ট্রাক ও ভারী যান চলাচলের কারণে সেতুর অবস্থা দিন দিন আরও খারাপ হচ্ছে। এর আগে শহরের একাধিক সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করেছেন বিশেষজ্ঞরা৷ কয়েকদিন বন্ধ রেখে সেই সেতু ও উড়ালপুলগুলির স্বাস্থ্য পরীক্ষা চালানো হয়৷ সেই রিপোর্ট নবান্নের হাতে তুলে দেন বিশেষজ্ঞরা৷

টালা ব্রিজ ভেঙে ফেলে নতুন ব্রিজ তৈরির পক্ষেই মত দিলেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের মতে, ‘পুরনো ব্রিজ ভেঙে নতুন ব্রিজ তৈরি করাই ভালো।’ এখন নতুন ব্রিজ তৈরি করতে সময় লাগবে ৩ বছর। এই সময়কালে যান চলাচলের নতুন রাস্তা কী হবে? সেই সবকিছু খতিয়ে দেখেই নেওয়া হবে সিদ্ধান্ত।

@এস. এ. হামিদ 

(Visited 10 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here