চিটফাণ্ড কাণ্ডে নাম জড়াল প্রসেনজিৎ-এর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | July 9, 2019 | 11:45 am

রোজভ্যালি কাণ্ডে এবার ইডি তবল করল প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে

সোমবার রোজভ্যালি কাণ্ডে ইডির দফতরে হাজিরা দিয়েছিলেন প্রাক্তনমন্ত্রী মদন মিত্র। তারপর চব্বিশ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই রোজভ্যালি কাণ্ডে ইডি তলব করল অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। আগামী ১৯ জুলাই বেলা ১২টায় ইডির দফতরে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তাঁকে।

ইতিমধ্যেই জানা গিয়েছে, রোজভ্যালি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে দেখা গিয়েছে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। তিনি কেন এই সকল অনুষ্ঠানে যেতেন এবং এই সকল অনুষ্ঠানে যাওয়ার জন্য দুই পক্ষের মধ্যে কোনরকম আর্থিক লেনদেন হত কিনা সেসব বিষয় খতিয়ে দেখার চেষ্টা চালাচ্ছে এনফর্সমেন্ট ডিপার্টমেন্ট। সূত্রের খবর, এই সকল সমস্ত বিষয় খতিয়ে দেখার জন্য ইডির দপ্তরে তলব করা হয়েছে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে। এ বিষয়ে বেশ কিছুদিন আগে তাকে একটি চিঠিও পাঠানো হয় বলে জানা গিয়েছে।

সূত্রের খবর, বেশ কয়েকদিন ধরে রোজভ্যালির কর্ণধার গৌতম কুন্ডুকে দফায় দফায় জেরা করছে ইডি। আর এই জেরার মুখে উঠে আসছে একের পর এক নতুন নাম। আর এইসব বিষয়কে ভালো করে ঝালিয়ে নিতে ইডি জিজ্ঞাসাবাদ করবে অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে।

আজ অভিনেতা প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় শান্তিনিকেতনের ক্যামেলিয়া হোটেল টিভি সিরিয়ালের একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার সময় ইডির এই তলব নিয়ে তিনি তাঁর প্রতিক্রিয়া জানান।

ইডির তলবের চিঠি সম্পর্কে তিনি জানান, “দেখুন আমি এই মুহূর্তে কোন কিছুই বলতে পারব না। এটা ঘটনা, এটা তো আমাকে দেওয়া হয়নি, দেওয়া হয়েছে কোম্পানিকে। আমি নিজে একজন নাগরিক, দায়িত্ব সম্পন্ন নাগরিক। ভারতের যে কোনও বিধানকে সম্মান দিই। এখানে যেটুকু আমার করার দরকার, যেটা করলে একটা নতুন ভারত তৈরি হবে, একটা নতুন ভারতের সৃষ্টি হবে, এটা তো ভারতের নিয়মের বাইরে নয়। সেখানে যদি তারা কোনও রকমভাবে আমার কাছ থেকে সহযোগিতা বা কোম্পানির থেকে সহযোগিতা চান ১০০% ভাবে আমি করব। না করার মতো কিছু নেই।”

রোজভ্যালি এবং সারদা চিটফান্ড কাণ্ডের তদন্ত নিয়ে বারবার রাজ্য সরকার চক্রান্ত বলে কেন্দ্র সরকারের দিকে আঙুল তুললেও এদিন অবশ্য এবিষয়ে প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় জানান, “এ বিষয়ে আমি কোন মন্তব্য করব না।”

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *