সম্পত্তির লোভেই পরকীয়া, প্রেমিককে খুন প্রেমিকার

ইনসেটে গৌরী পন্ডা

সম্পত্তির লোভেই পরকীয়া, খুন প্রেমিক, স্বীকারোক্তি প্রেমিকার

দক্ষিণ ২৪ পরগনা: মাত্র ২ সপ্তাহের মধ্যে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক রামপদ করনের হত্যা মামলার কিনারা করল ঢোলাহাট থানার পুলিশ। গত ২৪ জুন রামপদকে ফোন করে বাড়িতে ডাকেন প্রেমিকা গৌরী পন্ডা (৬২)। তাঁর বাড়ি পূর্ণ চন্দ্রপুর গ্রামে। প্রেমিক প্রাক্তন শিক্ষক রামপদবাবুর বাড়ি থেকে ঢিলছোড়া দূরত্বে গৌরী দেবীর বাড়ি। দীর্ঘ ৩০ থেকে ৩২ বছর ধরে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে ছিল এই প্রেমিক-প্রেমিকা। এই নিয়ে বহু বিচার পঞ্চায়েত হলেও প্রেমে কোনওদিন ভাটা পড়েনি দুজনের। যত বয়স বেড়েছে প্রেমের টান তত বেড়েছে। এমনই অবস্থা হয়েছিল যে দুজন দুজনকে  ভুলে এক মুহূর্ত থাকতে পারত না। কিন্তু সেই ভালোবাসা যে সম্পত্তির লোভে ভালোবাসা সেটা বোঝা গেল বৃহস্পতিবার যখন গৌরী পন্ডাকে ঢোলাহাট থানার পুলিশ গ্রেফতার করল। গৌরী পন্ডার এক ছেলে প্রকাশ পন্ডা পাথরপ্রতিমার যুধিষ্ঠির বিদ্যালয়ের শিক্ষক। এই বয়সে এসে খুনের অভিযোগে গ্রেফতার হবেন এলাকার মানুষকে কিছুতেই বুঝে উঠতে পারছে না। গৌরী পন্ডাকে গ্রেফতার করার পর তিনি স্বীকার করেন ২৪ জুন রামপদকে ফোন করে গৌরী দেবী নিজের বাড়িতেই ডেকে এনে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে খুন করেন। সম্পত্তি লিখে না দেওয়াতেই খুন করেছেন বলে তিনি স্বীকারও করেন।

জানা গিয়েছে, রামবাবু হাইস্কুল থেকে অবসর নেওয়ার পর সুদের কারবার করতেন। সেই সুদের কারবার দেখাশোনা করতেন দীর্ঘদিনের প্রেমিকা গৌরী দেবী। দুজনের এই পরকীয়ার সম্পর্ক মানতে না পেরে বেশ কয়েক বছর আগে গুরুদেবের স্বামী আত্মহত্যা করে বলে গ্রামবাসীদের অভিযোগ। তারপর থেকেই গৌরী দেবীর সঙ্গে রামবাবুর অবাধ মেলামেশা শুরু হয়।  গৌরী দেবীর ছেলে পেশায় শিক্ষক। অন্যদিকে,  রামবাবুর ছেলে কৃষি বিভাগের সম্মানীয় পদে চাকরি করেন। গ্রামের লোক এই বিষয়টি নিয়ে বেশি আর মাতামাতি করেননি বলে গ্রামবাসীরা জানান। সেই গৌরী দেবী তিনি পুলিশ জেরায় বলেন, দীর্ঘদিনের প্রেম আমাদের। আমাকে সম্পত্তি দেবে না সব সম্পত্তি ওনার স্ত্রী ভোগ করবে, ছেলে ভোগ করবে। আমি কি ভেসে এসেছি, আমাকে সম্পত্তি লিখে দিতে হবে। এই কথা বলায় রামবাবু অস্বীকার করলে তখনই ধারালো অস্ত্র দিয়ে রাগের বশে গলাতে বসিয়ে দেয় গৌরী দেবী। তখনই প্রাণ হারায় রামবাবু। সন্দেহের তীর অন্যদিকে ঘোরাবার জন্য কয়েকজনকে সঙ্গে নিয়ে রাত্রের মধ্যে রামবাবুর বাড়ির বাগানে মৃতদেহটি ফেলে দিয়ে আসে। পরদিন সকালে প্রশাসন এলে গ্রামবাসীরা ঘন্টার পর ঘন্টা খুনিকে ধরার জন্য এলাকা অবরোধ করে রাখে। শেষমেষ প্রশাসনের কথায় সে অবরোধ উঠে যায়। গতকাল গৌরী দেবী গ্রেফতার হওয়ার পরে এলাকায় এখন শুধুই গুজব গৌরী দেবী একা কী করে রামবাবুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করল। তবে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়ছে, অন্যান্য খুনিদের ধরার জন্য গৌরী দেবীকে পুলিশ হেফাজতে নেওয়া হবে।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *