নদীর পাড় দখল করে নির্মাণ, ক্ষোভ এলাকাবাসীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | August 5, 2019 | 4:31 pm

অসীম বেরা,ঘাটাল:  শিলাবতি নদীর পাড় দখল করে বেআইনি নির্মান, হুশ নেই প্রশাসনের। এর ফলে পরিবর্তন হচ্ছে ঘাটালের রুপরেখা, যার জেরে নদীর পারে ভাঙ্গন দেখা দিছে। ওই এলাকা গুলিতে দিন দিন বাড়ছে বন্যার প্রবণতা। ক্ষোভ জন্মাচ্ছে এলাকাবাসীদের মধ্যে। অভিযোগ বামফ্রন্ট সরকারের সময়কাল থেকেই দখল হয়ে পড়ছে শিলাবতী নদীর পাড়।চেয়ার বদল হলেও বদলায়নি ঘাটালের সাধারণ মানুষের জীবন।

পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার ঘাটাল শহর ভাগ করেছে  শিলাবতী নদী, আর সেই শীলাবতী নদীর দুই পাড়ে  গজিয়ে উঠেছে বাড়ি। এর ফলে ছোট হচ্ছে নদী, ভাঙছে বাঁধ। সেই বাঁধ ভেঙে ঘাটালে প্রতাপপুরে  ২০১৭ সালে পৌরসভা সমস্ত ওয়ার্ড সহ দাসপুরের বিস্তৃত এলাকা প্লাবিত হয়ে পড়েছিল। এমন কি উদ্ধার কাজে নামানো হয়ে ছিল বায়ুসেনা। সেই সময় ঘাটাল পরিদর্শনে এসে সেচমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছিলেন” নতুন করে নির্মান কার্য না হয় তা ব্যাবস্থা করতে, কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এমনকি নদী ছোট হবার ফলে দেখা নেই স্টিমার ও পাল তোলা নৌকার। স্থানীয়দের মানুষের দাবী  ঘাটাল প্রাচীন ব্যবসায়িক কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত। আগে জল পথেই চলত ঘাটালের ব্যবসা। বর্তমানে মজে গিয়েছে ঘাটাল শিলাবতি নদী ফলে এখন বড় নৌকা আসতে পারে না। দখল হচ্ছে নদীর দুই পাড় ফলে জল বহন ক্ষমতা কমেছে নদীতে। এমনকি এই ঘটনাকে দায়ী করছেন প্রশাসনকে বাসিন্দারা ।

ঘাটাল পঞ্চায়েত সমিতির ভূমি কর্মাধ্যক্ষ দয়াময় চক্রবর্তী বলেন “এটা প্রশাসনিক গাফিলতির ফল,এই ভাবে চলতে থাকলে এক দিন হয়তো থাকবেনা নদী।  বাঁধের ধারে বাড়ি থাকার ফলে ঘটেছিল  বাধঁ ভাঙার ঘটনা। ঘাটালের বিজেপি নেতা জগন্নাথ গোস্বামী বলেন নদীটি সংস্কার করা প্রয়োজন কিন্তু কাজের কাজ হয়নি। নদী পাড়ের চিত্র দেখে বোঝাই যাচ্ছে বেশির ভাগ অংশই দখল হয়ে পড়েছে। স্থানীয়দের অভিযোগ বেশ কয়েক বছর ধরেই ঘাটাল পৌরসভা ও গ্রাম পঞ্চায়েত গুলি নদীর পাড়ে বেশ কিছু নির্মাণ কাজের জন্য অনুমতি প্রদান করে। ঘাটাল পৌরসভার চ্যেয়ারম্যান বিভাষ চন্দ্র ঘোষ  বলেন “নদীর পাড়ে নির্মাণ কাজের জন্য অনুমতি পত্র দিতে পারে না পৌরসভা মিথ্যে অভিযোগ করা হচ্ছে। ঘাটাল মহকুমাশাসক অসীম পাল বলেন” কোন মতেই পারমিশন দেওয়া হবেনা,আমরা পৌরসভা ও গ্রাম পঞ্চায়েত গুলোকে জানাবো। স্থানীয় মানুষের দাবী সরকারি হস্তক্ষেপে দখলমুক্ত করা হোক ঘাটাল শিলাবতি নদী পাড়।

 

 

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট