অনাবৃষ্টিতে হতাশ চাষিরা

0
11

পুরুলিয়ায় অনাবৃষ্টিতে হতাশ চাষিরা

পুরুলিয়া: বৃষ্টির দেখা নেই, বর্ষা মরশুমের অর্ধেক দিন অতিক্রান্ত হয়ে গেল, রুক্ষ জেলায় আদতে কি চলতি মরশুমে চাষ হবে, নানাবিধ প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে হতাশায় জেলার কৃষকেরা। প্রাকৃতিক নিয়ম অনুসারে বাংলা মাসের আষাড় ও শ্রাবণ দুই মাস বর্ষাকাল। রুক্ষ জেলা পুরুলিয়ার সমস্ত কৃষক সম্প্রদায়ের মানুষের এক মাত্র ভরসা সেই বৃষ্টির জল। কিন্তু এবছর এই বর্ষা মরশুমে এখনও পর্যন্ত অর্ধেক দিন অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও দেখা মেলেনি বৃষ্টির।

বীজ তলা তৈরির কাজ প্রায় শেষ। শুধু অপেক্ষা ধানের চারা রোপনের। আর কত অপেক্ষায় থাকতে হবে, নাকি এবছর অনাবৃষ্টির কারণে ফাঁকা পড়ে থাকবে চাষ যোগ্য জমি? উঠছে প্রশ্ন। হতাশায় ভুগছেন জেলার সমস্ত চাষিরা । চাষীদের বক্তব্য, ‘বর্তমানে যে সমস্ত জমি আমরা চাষ করি তার বেশিরভাগটাই উচ্চফলনশীল ধান। সেই নিয়ম এবং রীতিমতো বীজ তোলা তৈরি করা হয়েছে প্রায় এক মাস আগে থেকেই। পার হয়ে যাচ্ছে বীজ চারা লাগানোর সময়।’ কাজেই এ বছর চাষের গতি ভালো বুঝতে পারছেন না জেলার কৃষকেরা। তাই এখন থেকে চিন্তায় সকলেই আগামী বছরে তাঁদের চলবে কি করে? সরকার হয়তো জেলাকে খরা পর্বন ঘোষণা করে চাষীদের কিছুটা আর্থিক লাঘব কররার চেষ্টা করবেন। তাতে কি পরবর্তী মরশুমে চাষের অগ্রগতি হবে? তাই এখন সকলেই তাকিয়ে বৃষ্টি দেবতা বরুণ দেবের উপর।

(Visited 2 times, 1 visits today)