সাধারণ কার্যকর্তা হিসেবে দলে থাকতে হবে নব্য বিজেপিদের: বিধায়ক প্রশান্ত

গুয়াহাটি: সাম্প্রতিককালে কংগ্রেসের কয়েকজন শীর্ষ নেতা দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করার পর মুখ খুলেছেন প্রশান্ত ফুকন। ডিব্রুগড়ের কয়েকবারের বিধায়ক বিজেপির প্রশান্ত ফুকন। গতকাল তদানীন্তন কংগ্রেস নেতা গৌতম রায়, প্রাক্তন সাংসদ শান্তিয়াজ কুজুর, যুবকংগ্রেস সভাপতি হিরণ্য ভুইয়াঁ, এর আগে আরেক কংগ্রেস নেতা রাজ্যসভার সদস্য ভুবনেশ্বর কলিতা বিজেপিতে যোগদান করেছেন। এ-ধরনের কংগ্রেস নেতাদের বিজেপিতে যোগদানে দলের ওপর কী ধরনের প্রভাব পড়তে পারে সংক্রান্ত এক প্রশ্নের জবাবে প্রশান্ত বলেন, এঁরা এতদিন কংগ্রেসের নেতা ছিলেন, বিজেপির নেতা নন। বিজেপিতে তাঁদের সাধারণ কার্যকর্তা হিসেবে থাকতে হবে। এখানে নিজেদের নেতা মনে করলে চলবে না। নিজের খেয়াল খুশি মতো চলা যাবে না। তাঁরা কংগ্রেসি খোলস ছাড়ার অঙ্গীকার করার পরই বিজেপি তাঁদের গ্রহণ করেছে, বলেন দলের বরিষ্ঠ নেতা প্রশান্ত ফুকন।

নির্ভরযোগ্য সূত্রের দাবির ভিত্তিতে বিধায়ক ফুকনকে জিজ্ঞাসা করা হয়েছিল শিগগির কংগ্রেস থেকে পদত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেবেন রাজ্যসভার সদস্য রানি নরহ। সঙ্গে তাঁর স্বামী তথা কংগ্রেস নেতা ভরত নরহ, টংকবাহাদুর রায় এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কংগ্রেস নেতা পবনসিং ঘাটোয়ার প্রমুখ। এর উত্তরে প্রশান্ত ফুকন বলেন, বিজেপির প্রতি আস্থা ও বিশ্বাস রেখে কেউ যদি আসতে চান তাহলে কোনও আপত্তির কিছু নেই। কিন্তু পদবীর দাবি করলে বিজেপি কাউকে গ্রহণ করবে না, এটা ঠিক। তিনি বলেন, বিজেপির চলমান সদস্যভুক্তি অভিযানের অঙ্গ হিসেবে এই-সব নেতা যোগদান করেছেন। আগামী ১৮ আগস্ট পর্যন্ত বিজেপির যোগদান কার্যসূচি চলবে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, বিজেপিতে সর্বদা কাজের মাধ্যমে ব্যক্তি নিরূপণ হয়। কংগ্ৰেস নেতা গৌতম রায়ের ‘দুৰ্নীতি’ প্রসঙ্গেও মন্তব্য করেছেন বিধায়ক ফুকন। বলেন, “দুর্নীতি করেছেন বলে খবরের কাগজ দেখালেই হবে না, সে-সব আদালতে প্ৰমাণিত হতে হবে। কিন্তু গৌতম রায়ের বিরুদ্ধে কোনও দুর্নীতি আজও প্ৰমাণিত হয়নি।”

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here