অবশেষে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পে-প্রোটেকশন দিল স্কুল শিক্ষা দপ্তর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্কঃ অবশেষে এই ক্ষতির হাত থেকে মুক্তি পেতে চলেছেন একই ক্যাটাগরির পদে যোগ দেওয়া শিক্ষক-শিক্ষিকারা । সম্প্রতি স্কুল শিক্ষা দপ্তর একটি নির্দেশিকা জারি করে জানিয়েছে, যে সকল পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট ইন-সার্ভিস শিক্ষক-শিক্ষিকারা পোস্ট-গ্র্যাজুয়েট ক্যাটাগরিতেই যোগ দিয়েছেন বা পাস-গ্র্যাজুয়েট ইন-সার্ভিস শিক্ষক-শিক্ষিকারা পাস-গ্র্যাজুয়েট ক্যাটাগরিতেই যোগ দিয়েছেন তাঁদের পে-প্রোটেকশন দেওয়া হবে ।উচ্চপদ বা বাড়ির স্কুলে কাজের সুযোগ পেতে গিয়ে আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়েছে রাজ্যের বহু ইন-সার্ভিস শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ।

২০১৬ সালে এসএলএসটি পরীক্ষায় বসেন একাদশ-দ্বাদশের এই শিক্ষক-শিক্ষিকারা । লিখিত পরীক্ষা ও ইন্টারভিউতে উত্তীর্ণ হয়ে নিয়ম অনুযায়ী পুরোনো স্কুলের চাকরি ছেড়ে নতুন স্কুলে আসার পরই বাধে বিপত্তি । অভিযোগ, তাঁদের সার্ভিস কন্টিনিউয়েশন ও পে-প্রোটেকশন না দিয়ে ইনিসিয়াল অর্থাৎ প্রথম ধাপের বেতন দেওয়া হচ্ছে । কারও ক্ষতির পরিমাণ মাসে ১৭ হাজার, তো কারও ১৩ হাজার টাকা । নির্দেশিকায় রয়েছে, ইন-সার্ভিস সহকারি শিক্ষক-শিক্ষিকা যাঁরা স্কুল সার্ভিস কমিশনের সুপারিশে নতুন করে নিয়োগ হয়েছেন স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ক্যাটাগরিতে তাঁদের পে-প্রোটেকশন ও বেতনের বিষয়টি বেশ কিছু সময় ধরেই সরকারের বিবেচনাধীন ছিল । বিবেচনা করার পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, স্নাতকোত্তর ডিগ্রি থাকা যে সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা স্নাতকোত্তর ক্যাটাগরি পদে রয়েছেন ও স্নাতকোত্তর পে-স্কেল পান তাঁদের বয়স বিজ্ঞাপন প্রকাশের বছরের ১ জানুয়ারি ৪০ বছরের মধ্যে হলে তাঁরা স্নাতকোত্তর ক্যাটাগরির শিক্ষক পদের জন্য আবেদন করার জন্য যোগ্য । ১৬ এপ্রিল ১৯৯৬ সালে এই দপ্তর দ্বারা জারি করা মেমো অনুযায়ী তাঁরা তাঁদের শেষ বেতন প্রোটেকশনের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন । সম্মতি জানিয়ে অর্থ দপ্তরের চলতি বছর ১ জুলাইয়ের মেমো অনুযায়ী এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে । একই প্রিন্সিপাল পাস-গ্র্যাজুয়েট ডিগ্রি রয়েছে এমন শিক্ষক-শিক্ষিকা যাঁরা পাস-গ্র্যাজুয়েট ক্যাটাগরি পদে রয়েছেন তাঁদের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে । তাঁরাও পাস-গ্র্যাজুয়েট ক্যাটাগরি পদের জন্য আবেদন করতে পারবেন বয়সসীমা মেনে ও তারপরে প্রয়োজনীয় পে-প্রোটেকশন পাবেন । এই নির্দেশিকা স্কুল শিক্ষা দপ্তরের অধীনস্থ সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত ও স্পনসর্ড স্কুল এবং মাইনোরিটি অ্যাফেয়ার্স এবং মাদ্রাসা এডুকেশন বোর্ডের অধীনস্থ সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত মাদ্রাসাগুলির ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য হবে ।

 

(Visited 9 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here