ঈদে জনগণের চলাচল করার জায়গায় পশু না কাটার আহ্বান মুসলিম নেতাদের

মোকতার হোসেন মন্ডল, কলকাতা: ঈদে জনগণের চলাচল করার জায়গায় পশু না কাটার আহ্বান জানালেন মুসলিম নেতারা। বিভিন্ন মসজিদের ইমাম, মাওলানা ও মুসলিম সংগঠনের নেতারা বলছেন, ঈদ মানে আনন্দ। কিন্তু একজনের আনন্দ অন্যজনের কাছে যেন বিরক্তিকর না হয়। ঈদ-উল-আজহাতে পশু কাটার সময় সাবধানতা অবলম্বন করা উচিত।
আগামী সোমবার ঈদ। মুসলিম সমাজে চলছে নানা প্রস্তুতি। এরই মধ্যে মুসলিম নেতারা নিরিবিলি জায়গায় পশু কাটতে বলছেন। জামায়াতে ইসলামী হিন্দের পক্ষ থেকে একটি আহ্বান মূলক বার্তা বিভিন্ন জেলায় পাঠানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে, রাস্তা ও জনগণের চলাচল করার জায়গায় কুরবানী না করা বরং সাবধানতার সাথে কুরবানীর ব্যবস্থাপনা করা দরকার। রক্ত ও অবশিষ্ট অংশ অবশ্যই মাটি দিয়ে চাপা দিতে হবে। পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতায় বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে। মহল্লার কোন নিরাপদ স্থানে কুরবানী করা যায় কি না তা চেষ্টা করতে হবে।’

ওই সংগঠনের রাজ্য সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুর রফিক বলেন, কুরবানী নিজের পাপকে বিসর্জন দিয়ে পবিত্র হওয়ার বার্তা দেয়। ত্যাগের নাম কুরবানী। কিন্তু নিজেদের কোনো কাজ বা তৎপরতার জন্য সাধারণ জনগণ ও বিশেষ ভাবে প্রতিবেশী অন্য দেশবাসী ভাইদের কোনো অভিযোগ করার পরিবেশ যেন তৈরি না হয় তা দেখতে হবে। মুসলিমদের প্রতিটি কাজ হবে পরিবেশ বান্ধব ও শান্তির জন্য।’ শাসক দলের একাধিক নেতা বেশ কয়েক বছর থেকে ঈদে খোলাজায়গায় পশু না কাটার জন্য আহ্বান জানাচ্ছেন। বিভিন্ন ইমামরা মসজিদে মসজিদে মানুষকে পরিবেশ নিয়ে সচেতন করছেন।

এক মুসলিম সংগঠনের রাজ্য নেতা বলেন, ইসলাম কারও সমস্যা করে কোনও কাজ করতে বলেনি। একটি সজ্জন ও সুন্দর সমাজ গঠনের বার্তা দেয়। তাই ঈদে এমন আহ্বান।

(Visited 3 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here