Lead Newsঅপরাধ-দুর্নীতিআজকের গুরুত্বপূর্ণ খবর ৩দেশবিদেশ

হিন্দুরাষ্ট্র কৈলাশাকে খারিজ ইকুয়েডরের, নিত্যানন্দের পাসপোর্ট বাতিল করল ভারত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:   সঙ্কটে নিত্যানন্দ!  ধর্ষণ ও অপহরণে অভিযুক্ত স্ব-ঘোষিত ধর্মগুরু নিত্যানন্দকে আশ্রয় দিয়েছে ইকুয়েডর সরকার। কিছুদিন আগে এমনই দাবি করেছিল ভারতে, কিন্তু এবার সেই দাবি নস্যাৎ করল ইকুয়েডর। ইকুয়েডর সরকার জানিয়ে দিল দক্ষিণ আমেরিকার কোনও দেশে জমি কেনার ক্ষেত্রে কোনও সহায়তা করা হয়নি নিত্যানন্দকে।  ইকুয়েডর থেকে এমন জবাব পেয়েই  শুক্রবার নিত্যানন্দের পাসপোর্ট বাতিল করল ভারত।

বেশ কিছুদিন আগেই ধর্ষক ও অপহরণকারী ধর্মগুরু নিত্যানন্দের গতিবিধি সম্পর্কে নজর রাখার জন্য সমস্ত বিদেশি মিশনকে জানানো হয়েছিল। তাঁর পদকে ‘সংবেদনশীল’ ঘোষণা করা হয়েছে। ইকুয়েডরের দূতাবাস এক বিবৃতিতে বলেছে যে তারা নিত্যানন্দের আশ্রয়ের আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছে। ইকুয়েডরের কাছে প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পর  হাইতির উদ্দেশ্যে  রওনা হয় নিত্যানন্দ। ইকুয়েডরের দূতাবাস যে বিবৃতিটি পাঠিয়েছে তাতে স্পষ্টভাবে উল্লেখ রয়েছে, স্ব-ঘোষিত ধর্মগুরু নিত্যানন্দকে ইকুয়েডরের দ্বারা আশ্রয় দেওয়া হয়েছিল বা ইকুয়েডরের কাছাকাছি বা দূরের দক্ষিণ আমেরিকার কোনও জমি বা দ্বীপ কেনার ক্ষেত্রে ইকুয়েডর সরকার সহায়তা করেছিল। তা পুরোটাই মিথ্যা। ইকুয়েডর থেকে তাঁর অনুগামীদের দ্বারা ক্রয় করা একটি দ্বীপে নিত্যানানন্দ ‘হিন্দু স্বদেশ’ কৈলাসা তৈরির ঘোষণা করেছিলেন।

কর্ণাটকে তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের করা একটি ধর্ষণ মামলা থেকে নিজেকে বাঁচাতে পাসপোর্ট ছাড়াই ভারত ছেড়ে পালিয়ে গিয়েছিলেন নিত্যানন্দ। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার নিত্যানন্দের ‘হিন্দুভূমি কৈলাস’ ঘোষণার বিষয়ে মন্তব্য করতে অস্বীকার করেন। তিনি বলেন, নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে মামলাগুলির বিষয়ে মন্ত্রককে জানানো হলে তারা তার পাসপোর্ট বাতিল করে দেয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, আহমেদাবাদে তাঁর আশ্রম থেকে দুই মহিলা নিখোঁজ হওয়ার পরে গত মাসে নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে একটি এফআইআর দায়ের করা হয়েছিল। যোগিনী সর্বজ্ঞপীঠম নামে তাঁর আশ্রম পরিচালনার জন্য অনুগামীদের অনুদান সংগ্রহ করতে তিনি শিশুদের অপহরণ এবং অন্যায়ভাবে বন্দি করে রাখতেন বলে অভিযোগ।

নিত্যানন্দকে নিয়ে কেন্দ্র কি পদক্ষেপ নেয় সেটাই দেখার।

@স্বর্ণার্ক ঘোষ

 

(Visited 67 times, 1 visits today)

Tags

Related Articles

Back to top button
Close
Close