ছিনতাইবাজদের হামলায় মৃত স্ত্রী ও মেয়ে, চোখের জলে মেয়ের জন্মদিন পালন বাবার

জয়দেব লাহা, দুর্গাপুর: মেয়ে আজ ২২ বছরে পড়েছে। অনটনের সংসারে দুচোখে স্বপ্ন ছিল চিকিৎসক হয়ে দুঃস্থের সেবা করার। আর সেই ডাক্তারির পড়ার জীবনযুদ্ধ থমকে গেছে। রাজস্থানের কোটায় ডাক্তারি পড়তে যাওয়ার পথে মথুরায় ট্রেনে ছিনতাইবাজদের খপ্পরে পড়ে মা। ডাক্তারি পড়ার জরুরি নথী পত্র কেড়ে নেওয়ায় ছিনতাইবাজদের সঙ্গে ধস্তাধস্তি হয়। তখনই ছিনতাইবাজদের ধাক্কায় ট্রেন থেকে পড়ে যায় মা। আর মা কে বাঁচতে ট্রেন থেকে ঝাঁপ দেয় মেয়ে। পরিণাম মৃত্যু। ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় তাদের শরীর। মর্মান্তিক পরিণতির খবরটা মুহূর্তেই গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। হ্যাঁ, এতক্ষণ যাদের কথা বলছিলাম, দুর্গাপুরের রাঁচী কলোনীর বাসিন্দা মনীষা ডোম ও তার মা মীনা দেবী।
গত ২ আগষ্ট তাদের জীবনযুদ্ধের লড়াই শেষ হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার মনীষার বাড়িতে জন্মদিন পালন হয়। তবে ছিল না কোনো আড়ম্বর। তার ছবির সামনে জ্বলছিল দ্বীপশিখা। মনীষার বাবা দীলিপ ডোম বুকের মধ্যে একরাশ শূন্যতা নিয়ে কেক কাটলেন। মুহূর্তে বুকের মধ্যে আঁকড়ে থাকা যন্ত্রণা উগরে উঠল। চোখ দিয়ে বাঁধ ভাঙা জল। তিনি বলেন,” আজ মেয়ে ২২ বছরে পড়ল। অন্যান্যবার ওর জন্মদিনে স্ত্রী মীনা , মেয়ের জন্য কেক বানাতেন। নানাবিধ পদও তৈরি হত। বাড়িতে সমাগম হত , খাওয়াদাওয়া, সুন্দরভাবে কাটত দিনটা। কিন্তু আজ দুজনেই সহস্র যোজন দুরে। তাই মেয়ের ছবি রেখেই জন্মদিন পালন।” মনীষার ছবির সামনে পড়ার বই , কেক রেখে কাটা হল। ছবিতেই কেক খাইয়ে সজল নয়নে মনীষাকে স্মরণ করল পরিবার। মেয়ের স্মৃতিকে আঁকড়ে ধরে রাখার চেষ্টাতেই জন্মদিন পালন দীলিপবাবুর।

(Visited 13 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here