শাসনে ভেড়ি ভরাটের অভিযোগ তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে, মুখ্যমন্ত্রীর দ্বারস্থ গ্রামবাসীরা

সাকিলা হোসেন, শাসনঃ বেআইনিভাবে মেছো ভেড়ি ভরাট করে সেখানে অবৈধভাবে নির্মানের অভিযোগ উঠেছিল অনেক আগেই। মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির স্বপ্নের প্রকল্প “জল ধরো জল ভরো” প্রকল্পকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শাসক দলের মদতে ভেড়ি ভরাটের কাজ চলছে বলে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ। রবিবার এরই প্রতিবাদে এবার রাস্তায় নামলো গ্রামবাসীরা। ভেড়ি ভরাট এবং অবৈধ নির্মানের প্রতিবাদে রবিবার সকালে বেলিয়াঘাটা-রাজারহাট রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখাল গ্রামবাসীরা। রবিবার ঘটনাটি ঘটেছে শাসনের খামার নওবাদ গ্রামে। নেতাদের এই কীর্তির কথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানাতে দল বেধে কালীঘাটে রওনা দিয়েছেন গ্রামবাসীরা।

জানা গেছে শাসনের খামার নওবাদ গ্রামে প্রায় ৬২৭ বিঘা মাছের ভেড়ি আছে। ভেড়ির নাম কাকড়া ভিটা মাছের ভেড়ি। তৃণমূল ক্ষমতায় আসার পর এই ভেড়ির লিজের টাকা গ্রামবাসীদের মধ্যে বন্টন করে দেওয়া হত।

কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে বেআইনি ভাবে ভেড়ির একাংশ ভরাট করা হচ্ছে বলে অভিযোগ। প্রায় চল্লিশ বিঘার মতো জমি পাচিল দিয়ে ঘিরে তার মধ্যে প্রজেক্ট করছে বলে গ্রামবাসীদের অভিযোগ। স্থানীয় বাসিন্দা মহিবুল ইসলাম, ফতেমা খাতুন, মহম্মদ ইউসুফরা বলেন এই জমির লিজের টাকা দিয়ে আমাদের অনেকের সংসার চলে। অসুখ বিসুখ করলে চিকিৎসা করাই। কিন্তু সেই জমিই এখন বেআইনিভাবে ভরাট করে বিক্রি করে দেওয়া হচ্ছে। আমাদের পেটে লাথি মারা হচ্ছে। হাড়োয়ার বিধায়ক হাজি নুরুল ইসলাম, বারাসত দুই পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি ইফতিকার উদ্দিন, জেলাপরিষদের সদস্য হাজি মতিয়ার সাপুই, মসিউর রহমান সহ তৃণমূলের শীর্ষ স্থানীয় নেতাদের মদতে বেআইনি ভরাটের কাজ চলছে বলে মসিউরদের অভিযোগ। বিষয়টি দলের উর্ধতন কর্মকর্তাদের জানিয়েও কোনো কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। এরই প্রতিবাদে রবিবার তৃনমুলের ঝান্ডা নিয়ে বেলিয়াঘাটা-রাজারহাট রোড অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় কয়েকশো গ্রামবাসী। প্রায় তিরিশ মিনিট সময় ধরে চলে অবরোধ বিক্ষোভ। পরে পুলিশ এসে অবরোধ তুলে দেয়। এরপর দল বেধে কালীঘাটে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে যান গ্রামবাসীরা। তবে ভেড়ি ভরাটে মদদ দেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বিধায়ক হাজি নুরুল ইসলাম। 

(Visited 7 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here