চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা, গ্রেফতার যুবক

হাসপাতালে চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণার অভিযোগ, গ্রেফতার যুবক

বারুইপুর: সর্ষের মধ্যেই ভূত। বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালের রোগী সহায়তা কেন্দ্রের অস্থায়ী কর্মীর বিরুদ্ধেই কয়েক হাজার টাকার বিনিময়ে হাসপাতালে গ্রুপ ডি কর্মী, সিভিক পুলিশে চাকরি করে দেওয়ার নামে প্রতারণার অভিযোগ উঠল। এক গৃহবধুর কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা নিয়ে সিভিক পুলিস ও গ্রুপ ডি কর্মী হিসেবে চাকরি করে দেওয়ার কথা জানিয়েছিল অভিযুক্ত যুবক। গৃহবধু এই ব্যাপারে হাসপাতালের সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। পরে সুপার ডঃ অচিন্ত্য গায়েন এই অভিযোগের ভিত্তিতেই আবার বারুইপুর থানায় রাতে অভিযোগ দায়ের করেন। এরপর বারুইপুর থানার পুলিশ অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করে। অভিযুক্তের নাম জাহাঙ্গির মণ্ডল। অভিযুক্তকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বারুইপুর আদালতে তোলা হয়। অভিযুক্তের কাছ থেকে ডায়মন্ডহারবার, ঢোলা, কাকদ্বীপের বহু যুবকের বায়ডাটা বাজেয়াপ্ত করেছে পুলিশ। তাঁর বাড়ি বারুইপুর থানার ধপধপির শেরপুর এলাকায়।

হাসপাতাল সূত্রের খবর, ২০১৮ এর জুলাই মাস থেকে বারুইপুর মহকুমা হাসপাতালে রোগী সহায়তা কেন্দ্রে কাজ করছিল জাহাঙ্গির মণ্ডল। এক এনজিওর মাধ্যমে তাঁকে কাজে নেওয়া হয়। সোনারপুরের বামনগাছির বাসিন্দা গৃহবধু শান্তি নস্করের মেয়ে আর জামাইকে বারুইপুর হাসপাতালে সিভিক পুলিস ও গ্রুপ ডি কর্মী হিসেবে কাজ দেবে বলে তাঁদের কাছ থেকে ১৬ হাজার টাকা নিয়েছিল জাহাঙ্গির। এর পরেও কোনও কাজ না হওয়ায় হাসপাতালের অন্য আধিকারিকদের কাছে ওই গৃহবধু বিষয়টি জানায়। বিষয়টি সুপার ডঃ অচিন্ত্য গায়েনকে জানানো হয়। এরপরেই সুপার বারুইপুর থানায় রাতেই অভিযোগ দায়ের করেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতে জাহাঙ্গির মণ্ডল বলে যুবককে গ্রেফতার করে বারুইপুর থানার পুলিশ। ওই অভিযুক্ত যুবকের দাবি, তাঁকে ফাঁসানো হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ এর পিছনে বড় চক্র কাজ করছে। কোনও মাথা মাথা আছে এর পিছনে। হাসপাতালের অনেক কর্মীর যোগসাজস থাকতে পারে। পুলিশ প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছে জাহাঙ্গিরের নামে কারুর কাছ থেকে ১০ হাজার, ৫ হাজার টাকার নেবার অভিযোগ আছে। টাকা নিয়ে তাঁদের বলা হত সিভিক পুলিশে চাকরি দেবে, হাসপাতালের গ্রুপ ডি এর বিভিন্ন পদে চাকরি দেবে। পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here