বিশ্বভারতীর জায়গা নিয়ে টানাপোড়েন, উপাচার্যের অনশনে বসার আগেই প্রতিবাদ মঞ্চ হস্তশিল্পীদের

অমরনাথ দত্ত, বীরভূম: বিশ্বভারতীর জায়গাকে জবরদখল থেকে পুনরুদ্ধার করতে বিশ্বভারতীর উপাচার্য শ্রী বিদ্যুৎ চক্রবর্তী দিন কয়েক আগে সিদ্ধান্ত নেন কবিগুরু হস্তশিল্প মার্কেটে ১২ ঘন্টার অনশনে বসার। সোমবার অর্থাৎ আজ উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তীর অনশনে বসার কথা। কিন্তু তার আগেই কবিগুরু হস্ত শিল্প উন্নয়ন সমিতি কবিগুরু হস্তশিল্প মার্কেটে বসলেন প্রতিবাদ মঞ্চ গড়ে।

শান্তিনিকেতন রাস্তার উপর দীর্ঘদিন ধরে জায়গা দখল করে তৈরি হয়েছে কবিগুরু হস্তশিল্প মার্কেট। এই মার্কেট বিশ্বভারতীর এলাকার অন্তর্ভুক্ত বলে দাবি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের। বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ একাধিকবার বিজ্ঞপ্তি দিয়েও জবর দখল মুক্ত করতে পারেনি। এমনকি বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষের এও দাবি, সেখানকার হস্তশিল্পীদের অন্যত্র পুনর্বাসন দেওয়ার। কিন্তু তাতেও ব্যবসায়ীরা কোনওরকমভাবে ভ্রূক্ষেপ করেননি। বিশ্বভারতীর এলাকায় জায়গা জবরদখল তুলতে উপাচার্যের নেতৃত্বে মিছিলও করেন বিশ্বভারতীর পড়ুয়ারা এবং অধ্যাপক অধ্যাপিকারা। তারপর যখন দখলমুক্ত করা সম্ভব হয়নি তারপর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী সিদ্ধান্ত নেন ১২ ঘন্টার অনশনে বসার।

অন্যদিকে শান্তিনিকেতন রোডে ব্যবসা করা কবিগুরু হস্ত শিল্প উন্নয়ন সমিতির দাবি, “২৭ বছর ধরে আমরা বিশ্বভারতীর কুটির শিল্প এবং হস্তশিল্পকে ধরে রেখে যেমন ব্যবসা করছি ঠিক তেমনই বিশ্বভারতীর ঐতিহ্যকে ধরে রেখেছি। কিন্তু আমরা যেখানে ব্যবসা করি সেই জায়গা পূর্ত দপ্তরের। তাহলে সেখান থেকে কিভাবে আমাদের জোড় করে উচ্ছেদ করবে। সেটাই বুঝতে পারছি না। তাই আজ আমাদের এই প্রতিবাদ মঞ্চ।”

কবিগুরু হস্ত শিল্প উন্নয়ন সমিতির তরফ থেকে আরও জানানো হয়, “১৬/০৬/২০১৯ আমাদের বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ নোটিশ করে। কিন্তু সেই নোটিশে কোথাও নির্দিষ্ট করে লেখা নেই যে, এই প্লট নাম্বার থেকে আপনারা উঠে যান। পূর্ত দপ্তরের জায়গার উপরে উনারা কিভাবে হস্তক্ষেপ করছেন সেটা আমরা বুঝতে পারছি না। তাই আজ আমাদের প্রতিবাদ মঞ্চ এবং গণ স্বাক্ষর অভিযান চলবে।” বিশ্বভারতীর জায়গায় নিয়ে বিশ্বভারতী কর্তৃপক্ষ এবং কবিগুরু হস্ত শিল্প উন্নয়ন সমিতির যে বড় টানাপোড়েন তা অনস্বীকার্য। কারণ যেখানে বিশ্বভারতীর উপাচার্য বিদ্যুৎ চক্রবর্তী আগে থেকেই ঠিক করে রেখেছিলেন আজ অনশনে বসলেন আর ঠিক তার আগেই একই জায়গায় কবিগুরু হস্ত শিল্প উন্নয়ন সমিতি গড়ে তুললো তাদের প্রতিবাদ মঞ্চ!

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here