‘বৃদ্ধ’ সুব্রতকে আক্রমণ সায়ন্তনের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: বাংলায় একটু একটু করে ক্ষমতা বাড়িয়ে বাঙালির সবচেয়ে বড়ো উৎসবে প্রত্যক্ষ ভাবে অংশ গ্রহণের জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে গেরুয়া শিবির। পঞ্চায়েত দখল, এমএলএ দখলের পর এবার বাংলায় ‘পুজো দখল’ করতে চাইছে বিজেপি৷ তবে সেটা কোনওদিনই করতে পারবে না তারা৷ দুর্গাপুজোকে কখনও কোনও অশুভ শক্তি গ্রাস করতে পারবে না”। হুঁশিয়ারি দিলেন পঞ্চায়েত মন্ত্রী সুব্রত মুখার্জি৷ একডালিয়া এভারগ্রিনের খুঁটিপুজোয় তিনি বলেন “আগে এই বছরটা ওরা আমাদের কাছে ট্রেনিং নিক। ওরা পঞ্চায়েত, এম‌এল‌এ যে স্টাইলে দখল করছে, সেই স্টাইলে পুজো দখল করতে চাইছে। এভাবে হয় না। গ্রাম পঞ্চায়েত দখলের মতোই ‘গায়ের জোরে এবার পুজো দখল’ করতে চাইছে বিজেপি। বিজেপি চাইলেও এরাজ্যের পুজো দখল করতে পারবে না।”

অন্যদিকে, বিজেপির তরফে বলা হয়েছে তাঁদের পুজো কমিটিতে অংশ নেওয়ার ক্ষেত্রে বারংবার বাধা দিচ্ছে তৃণমূলের নেতারাই।দক্ষিণ কলকাতার পুজোগুলির মধ্যে অন্যতম ‘একডালিয়া এভারগ্রিন’। দীর্ঘকাল ধরে সেই পুজোর উদ্যোক্তা সুব্রত মুখোপাধ্যায়। একডালিয়ার খুঁটিপুজো অনুষ্ঠানে সুব্রত মুখোপাধ্যায় বলেন, “ওরা যেভাবে গায়ের জোরে রাজ্যের গ্রাম পঞ্চায়েত এবং পুরসভা দখল করছে, সেভাবেই দুর্গাপুজোকেও দখল করতে চাইছে। দুটির কোনওটিতেই ওরা সাফল্য পাবে না। অন্যদিকে পঞ্চায়েত মন্ত্রীকে নিশানা করেছেন রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসু। তিনি বলেন,  সুব্রত মুখোপাধ্যায় পুরোনো যুগের ধ্যান ধারণা নিয়ে থাকা এক বৃদ্ধ। উনি এবার অবসর নিয়ে নতুন প্রজন্মের হাতে দুর্গাপুজোর দায়িত্ব দিন। বাংলার সাধারণ মানুষ চাইছে বিজেপি দুর্গাপুজোয় অংশ নিক। বিজেপির বেশিরভাগ নেতাই পুজো কমিটিগুলির সঙ্গে রয়েছেন। কিন্তু তৃণমূল পুলিশের সাহায্য নিয়ে আমাদের বারবার বাধা দিচ্ছে”। আগামী বিধানসভা নির্বাচনের দিকে তাকিয়েই বাংলায় ভিত্তি শক্ত করতে শীর্ষনেতৃত্বের নির্দেশেই বাংলায় জনসংযোগ বাড়াতে দুর্গাপুজোকে হাতিয়ার করছে বিজেপি।

 

(Visited 1 times, 1 visits today)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here