নিপুণ হাতের ছোঁয়ায় অসাধারণ শিল্পকলা তুলে ধরেছেন শিল্পী বিমান আদক

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক | August 6, 2019 | 3:58 pm

অসীম বেরা,দাসপুরঃ দাসপুরের বিমান আঁকতে চায় মোদী মমতার ছবি। গ্রামীণ শিক্ষকের কাছে হাতে খড়ি তার পর রড় হয়ে ওঠা। এখন তিনি গ্রামের অঙ্কের শিক্ষক বিমান আদক, এবার ভুট্টা দানার উপর ফুটিয়ে তুলতে চায়, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও প্রধান মন্ত্রীর ছবি। কখনো এঁকেছেন রবীন্দ্রনাথ, গান্ধীজি, ক্ষুদিরাম, কিশোর কুমারের, ছোট্ট ভুট্টাদানার মধ্যে ছবি ফুটিয়ে ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নাম তোলা।


দাসপুর থানার নাড়াজোলের বাসিন্দা বছর ৩৫-এর বিমান আদক পেশা ও নেশায় চিত্র শিল্পী। কিন্তু সেভাবে কোনও নাম করা আর্ট কলেজের ডিগ্রি নেই তার। ছেলেবেলা থেকে থেকেই ছবি আঁকায় সখ, কিন্তু পরিবার পারেনি দামি স্কুলে ভর্তি করাতে। বর্তমানে পাঁশকুড়া বনমালী কলেজ থেকে বিপিএড করলেও মন ছবির দিকে। তারই মাঝে আনন্দপুরের এক গৃহ শিক্ষকের কাছে আঁকার তালিম। তার কর্মক্ষেত্রে যেন এক টুকরো স্বর্গ বলে মনে হয়। বাড়ির দরজা দিয়ে ভেতরে গিয়েই বাইরের ইঁট কাঠ পাথরের জগত । বাড়ির আনাচকানাচ বেয়ে লতাপাতা, রঙবেরঙের বাহারি গাছ গাছালির সঙ্গে তাল মিলিয়ে পাখিদের কিচিরমিচির। বার্জিগার, কক্টেল পায়রা সঙ্গে আবার নানা ধরনের মাছ।
কবিগুরুর ভক্ত বিমানবাবু ২২ শ্রাবণ কবির প্রয়াণদিবসে কবিকে শ্রদ্ধা জানাতে ক্ষুদ্র ভুট্টাদানার উপর মাত্র ১৫ মিনিটে ফুটিয়ে তুলেছেন রবীন্দ্রনাথের ছবি। বিমানবাবু বলেন, পাখির খাবারের সঙ্গে চকচকে ভুট্টাদানা পেয়ে ছুঁড়ে না ফেলে তাতে কিছু করা ইচ্ছায় মনে আসে আমার প্রাণের কবির কথা। আমি সেভাবে মাইক্রো আর্ট শিখিনি, নেই কোনও যন্ত্রপাতিও। নিজের তুলিতেই আতসকাঁচ লাগিয়ে এঁকে ফেললাম রবীন্দ্রনাথ। পরে গান্ধীজি, ক্ষুদিরাম সঙ্গে আমার প্রিয় কণ্ঠ শিল্পী কিশোকুমারেরও ছবি এঁকেছি।
আমাদের দেশ ও রাজ্যে দুই জনদরদি নেতা নেত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দোপাধ্যায় বহু জনকল্যাণমূলক কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন। এই ভুট্টা দানায় তাঁদের ছবি এঁকে তাঁদের শ্রদ্ধা জানাতে চাই। এখন আমি সে দিকেই এগোচ্ছি। ছেলেমেয়েদের আঁকা শিখিয়েই যেটুকু আয় তাতেই দিব্যি আছেন বিমানবাবু।

ক্লিক করুন এখানে, আর চটপট দেখে নিন ৪ মিনিটে ২৪টি টাটকা খবরের আপডেট